নয়াদিল্লি: কুয়াশার জেরে ফের উত্তর ভারতে বিপর্যস্ত রেল পরিষেবা। বুধবার সকাল থেকে ঘন কুয়াশার চাদরে ঢেকেছে উত্তর ভারতের বিভিন্ন এলাকা। কুয়াশার জেরে নর্দার্ন রেলওয়ের ১৮টি ট্রেন নির্ধারিত সময়ের থেকে বেশ খানিকটা সময় দেরিতে চলছে। কুয়াশার জেরে দৃশ্যমানতা কমে গিয়ে বিপত্তি। পরে আরও কিছু ট্রেন চলাচলেও দেরি হতে পারে রেলওয়ে সূত্রে খবর মিলেছে।

শীতকালে প্রতি বছরই উত্তর ভারতে ভীষণভাবে বিপর্যস্ত হয় রেল পরিষেবা। মূলত কুয়াশার জেরেই ব্যাহত হয় রেল পরিষেবা। এবার আগেও একাধিকবার কুয়াশার কোপ পড়েছে রেল পরিষেবায়। বুধবার ভোর থেকেই উত্তর ভারতের একাধিক এলাকায় এক ছবি। রেল পরিষেবার পাশাপাশি জাতীয় সড়কগুলিতেও কুয়াশার প্রভাব পড়েছে। দৃশ্যমানতা কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন গাড়িচালকরা। ভোরে দিল্লি-সহ পার্শ্ববর্তী বেশ কয়েকটি এলাকায় এলাকায় আলো জ্বালিয়ে গাড়ি চলাচল করতে দেখা গিয়েছে।

প্রতি বছরই শীত পড়তেই ভোরের দিকে কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ে উত্তর ভারতের একটি বড় অংশ। এবারও তার অন্যথা হয়নি। দিল্লি, চণ্ডীগড়, হরিয়ানা,উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় ভোরের দিকে ঘন কুয়াশার জেরে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে রেল ও সড়ক পরিবহণ ব্যবস্থা। কুয়াশার জেরে প্রায়ই ব্যাহত হচ্ছে বিমান পরিষেবাও।

কুয়াশার জেরে দৃশ্যমানতা কমে যাওয়ায় বিমান ওঠানামার ক্ষেত্রেও দেরি হচ্ছে। এবছর হাড়কাঁপানো ঠান্ডা পড়েছে উত্তর ভারতের রাজ্যগুলিতে। জাঁকিয়ে শীতের পাশাপাশি দাপট দেখিয়েছে কুয়াশাও। জাতীয় ও রাজ্য সড়কগুলিতে কুয়াশার জেরে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও