স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: ট্রেনের টিকিট কাটতে আর দাঁড়াতে হবে না লাইনে৷ শেষ মূহুর্তে ফোনে একটি ক্লিকে মিলবে আপনার রেলের টিকিট৷ বুধবার দিঘায় ইউটিএস নামে একটি নতুন অ্যাপ চালু করল দক্ষিণ পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশান। এই অ্যাপের মাধ্যমে লোকাল ট্রেন ও প্লাটফর্ম টিকিট কাটাতে পারবেন যাত্রীরা।

ট্রেনের টিকিট কাটা মানে বিস্তর ঝামেলা। লম্বা লাইন। সময় নষ্ট। ট্রেন ছাড়ার অনেক আগে পৌঁছতে হয় স্টেশনে। একবার টিকিট কেটে ফেললে তা বাতিলও করা যায় না। অফিস টাইমে ট্রেনের টিকিট বা মান্থলি কাটতে গিয়ে লম্বা লাইনের মুখে পড়তে হয় নিত্যযাত্রীদের৷

আরও পড়ুন: কৃষি ঝণ মকুবের ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

এবার ট্রেনের যাত্রীদের হয়রানির পালার অবসান হতে চলেছে। হাতে টিকিট নিয়ে ট্রেনে ওঠার দিন শেষ। আর কাউন্টারের লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার ঝক্কিও পোহাতে হবে না যাত্রীদের। রেলের নয়া উদ্যোগে এবার থেকে যাত্রীদের মোবাইলেই কেটে নেওয়া যাবে ট্রেনের টিকিট।

মোবাইল অ্যাপস ব্যবহার করেই টিকিট কাটতে পারবেন যাত্রীরা। এর ফলে সাধারণ শ্রেণিতে ভ্রমণের জন্য যাত্রীদের লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট না কাটলেও চলবে। মোবাইলে মেসেজের মাধ্যমে এর বিস্তারিত বিবরণ পেয়ে যাবেন সকলে।

আরও পড়ুন: রেফারি আমাদের শেষ করেছে: ফালকাও

এতদিন শহরতলির স্টেশনগুলিতে চালু ছিল এই সুবিধা। বুধবার থেকেই মোবাইলে কাগজ ব্যতীত অসংরক্ষিত টিকিট কাটার অ্যাপ্লিকেশন চালু হল নন-সাবার্বান স্টেশনগুলোতেও। দক্ষিণ-পূর্ব রেলওয়ের দিঘা স্টেশনে বুধবার এই অ্যাপসের পরিষেবার উদ্বোধন করেন খড়গপুরের ডিভিশনাল ম্যানেজার কে আর কে রেড্ডি। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি দিঘায় আসা পর্যটকেরাও এই সুবিধার ফলে লাভবান হবেন।

রেলের তরফে জানানো হয়েছে, মোবাইলেই টিকিটের সফট কপি টিকিট-পরীক্ষককে দেখালেই ছাড় পাবেন যাত্রীরা। ‘গুগল অ্যাপ স্টোর’ থেকে Unreserved Ticketing System অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। ডাউনলোড হওয়ার পর গ্রাহক রেলের ‘ই-ওয়ালেট’ তৈরির একটি রেজিস্ট্রেশন আইডি পাবেন।

আরও পড়ুন: এবার ৫০১ টাকাতেই মিলবে জিও ফোন

এরপর টিকিট কাটার জন্য গ্রাহকদের প্রয়োজনীয় টাকা অনলাইন ‘ই-ওয়ালেট’-এর মাধ্যমে জমা করতে হবে৷ তারপরই যে কোনও স্টেশনের টিকিট কাটা যাবে। ইচ্ছা মতো টিকিট কাটা এবং বাতিল করার সুযোগ রয়েছে রেলের নতুন এই অ্যাপে।