ফাইল ছবি

কলকাতা: ফের বিক্ষোভকারীদের টার্গেট রেল। আবারও প্রতিবাদের নামে চলল গুণ্ডামি। শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার বহড়ুতে চলন্ত ট্রেন লক্ষ্য করে পাথর ছুড়লেন আন্দোলনকারীরা। জানা গিয়েছে, সোমবার দুপুরে শিয়ালদহ-লক্ষ্মীকান্তপুর লোকাল ট্রেন লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে থাকেন বিক্ষোভকারীরা। বিক্ষোভকারীদের ছোঁড়া পাথরের আঘাতে ভেঙে গিয়েছে ট্রেনের জানলার কাচ। খবর পেয়ে বহড়ুতে যান রেলের আধিকারিকরা। ঘটনাস্থলে যান আরপিএফের কর্তারাও।

পড়ুন আরও- ‘আমার মৃতদেহের উপর দিয়ে NRC করুন’, পথে নেমে মোদী সরকারকে চ্যালেঞ্জ মমতার

অন্যদিকে দক্ষিণ বারাসত স্টেশন এবং হোগলা স্টেশনের মাঝে ওভারহেডের তারে দফায় দফায় কলাপাতা ফেলা হয়। যার জেরে দিনভর ব্যাহত শিয়ালদহ-লক্ষ্মীকান্তপুর শাখার ট্রেন চলাচল। পাশাপাশি, হাওড়া’র বিভিন্ন স্টেশনে চলে অবরোধ। একই সঙ্গে রবিবারের পর আজ সোমবারও বজবজ শাখায় একাধিক জায়গায় রেল লাইন আটকে চলে বিক্ষোভ।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী আন্দোলন এই নিয়ে চার দিনে পড়ল। এই আইন পাশ হওয়ার পর থেকে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি গোটা ভারতে। উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলি-সহ এরাজ্যেও বিক্ষোভের আগুন জ্বলছে। গত শুক্রবার থেকে লাগাতার চলছে বিক্ষোভ, প্রতিবাদ। প্রতিবাদের নামে এককথায় গুণ্ডামি চলছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে। আন্দোলনকারীদের সামলাতে হিমশিম দশা পুলিশেরও।

একের পর এক রেল স্টেশনে আগুন, ট্রেন-বাস জ্বালিয়ে দেওয়ার মত ঘটনায় আতঙ্কে রাজ্যবাসী। পথে বেরিয়ে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। আইন পাশ হওয়ার পর তিন দিন কেটে গেলেও প্রতিবাদের নামে সেই তাণ্ডব এখনও অব্যাহত। যদিও রাজ্য প্রশাসনের তরফে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানানো হয়েছে। নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি এরাজ্যে কার্যকর করা হবে না বলে সাফ জানিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে এই দুই ইস্যুর বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ পথে আন্দোলনের বার্তা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।