নয়াদিল্লি: গতির পরীক্ষায় সবাইকে পিছনে ফেলে দিয়েছে৷ এবার ময়দানে নেমে ছোটার পালা৷ সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে ২৯ ডিসেম্বর হতে চলেছে ভারতীয় রেলের ইতিহাসে এক ঐতিহাসিক দিন৷ ওই দিন থেকে রেললাইনে দুরন্ত গতিতে ছোটা শুরু করবে দেশের প্রথম ইঞ্জিনবিহীন ট্রেন- ট্রেন ১৮৷

ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের খবর অনুযায়ী, ২৯ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই ট্রেনের উদ্বোধন করবেন৷ দেশের প্রথম সেমি হাইস্পিড ট্রেন চলবে দিল্লি-বারাণসী রুটে৷ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি দিল্লিতে হবে নাকি প্রধানমন্ত্রীর লোকসভা কেন্দ্র বারাণসীতে হবে তা এখনও ঠিক হয়নি৷

শতাব্দী এক্সপ্রেস চালুর ৩০ বছর পর ভারতীয় রেলে এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা হতে চলেছে৷ ভারতীয় রেল আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল শতাব্দী ও রাজধানী এক্সপ্রেস বন্ধ করে তার জায়গায় দুটি নতুন আনার৷ সেই মতো শতাব্দী এক্সপ্রেসের উত্তরসূরি হল ট্রেন ১৮৷ রাজধানীর উত্তরসূরি হবে ট্রেন ২০৷ সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রেন দুটি তৈরি হচ্ছে চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরিতে৷ তাদের দাবি, এই ট্রেন দুটি ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি৷ ফলে খরচ হয়েছে অনেক কম৷ ট্রেনে চেয়ার কার কোচ থাকবে৷ ১৩৪ জন যাত্রী ট্রেনে চেপে যাত্রা করতে পারবেন৷

ট্রেনের পরিষেবা এককথায় বিশ্বমানের৷ দরজা হবে স্বয়ংক্রিয়৷ রোটেটিং চেয়ার, বিমানের মতো আলোর ব্যবস্থা, মডিউলার বায়ো ভ্যাকুয়ম টয়লেট, শারিরীকভাবে অক্ষমদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা৷ এছাড়া ট্রেনের খাবারের মান ভালো রাখা হবে৷