নয়াদিল্লি: আর চ্যালেঞ্জের পথে না গিয়ে এবার ব্যাকফুটে ট্রাই চেয়ারম্যান রামসেবক শর্মা৷ তিনি এবার গঠনমূলক আলোচনায় বসতে রাজি৷ সোমবার রাতেই ট্যুইট করে এই আলোচনার আহ্বান জানালেন ট্রাই প্রধান। একই সঙ্গে তাঁর মোবাইলের ব্যাটারি শেষ হয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।

তার আগে অবশ্য সোমবার বিকেলে ইমেলে তাঁর মেয়ে কবিতা শর্মাকে হুমকি দেয় হ্যাকাররা৷ হুমকিতে জানান হয়, তাঁর বাবার ইমেল অ্যাকাউন্টের তথ্য জোগাড় হয়ে গিয়েছে। যে কোনও মুহূর্তে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের অ্যাকাউন্টটিতেও তাঁরা তাদের ক্ষমতার নিদর্শন দেখিয়ে দেবেন৷

আরও পড়ুন: Breaking: উড়ানের পাঁচ মিনিটের মধ্যেই ভেঙে পড়ল বিমান

শনিবার সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আধার নম্বরের নিরাপত্তা নিয়ে গোটা দেশের মানুষের কাছে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ছিলেন ট্রাই কর্তা৷ যার ফলে পুরো দেশের কাছে সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন এই আর এস শর্মা বলে মনে হয়েছে হ্যাকারদের । তাঁর এই ছুঁড়ে দেওয়া চ্যালেঞ্জই হ্যাকারদের উৎসাহিত করেছেন এবং উনি নিজের বিপদে ডেকে এনেছেন। আর তারই ফলে বিপজ্জনক হয়ে গিয়েছে ওঁনার পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের অ্যাকাউন্টটি বলে ই মেলে হুমকি দেয় হ্যাকাররা। পাশাপাশি, ওঁনার ব্যক্তিগত ও গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলিও প্রকাশ্যে অনে দিতে পারেন বলেও মেয়ে কবিতাকে জানিয়েছেন৷

এমন কী ওই মেলে তারা কেমন করে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল হাতাবেন তারও ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। ট্রাই প্রধানের ব্যক্তিগত মোবাইলে যে একটি ‘রিমোট সফটওয়্যার’ লাগানোর রয়েছে বলে জানানো হয়। সেই সফটওয়্যারের মাধ্যমে তাঁর সমস্ত কথাবার্তা রেকর্ড করা হবে, সমস্ত নথিও হ্যাকারদের হাতে উঠে আসবে। চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে এই বিষয়ে কোনও রকম ব্যবস্থা না নিলে সমস্ত নথি প্রকাশ করবেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: সহকর্মীর অশ্লীল আচরণ! প্রতিবাদ করে চাকরি হারালেন মহিলা

অবশেষে এই পরিস্থিতিতে আর চ্যালেঞ্জ নেওয়ার বদলে গঠনমূলক আলোচনা বসতে চেয়ে সোমবার রাতে ট্যুইটার মেসেজে করেন ট্রাই প্রধান রামসেবক শর্মা। তবে লাগাতার মেসেজ আসায় তাঁর মোবাইলের ব্যাটারিটিও শেষ হয়ে যাচ্ছে বলে তিনি জানান৷