file pic

কলকাতা: রাজ্যে বন্ধ থাকা সমস্ত চটকাল খুলতে হবে। এই শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ২১টি ট্রেড ইউনিয়ন এমন দাবী জানিয়েছে। পাশাপাশি লকডাউনে শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা মিটিয়ে দেওয়ার দাবি করেছে এই ইউনিয়ন গুলি। সোমবার কলকাতায় ইন্ডিয়ান জুটমিল অ্যাসোসিয়েশনের সামনে এক প্রতিবাদ সভা করা হয়। সেখানে বেঙ্গল চটকল মজদুর ইউনিয়ন সহ ২১ ট্রেড ইউনিয়নের প্রতিনিধিরা হাজির ছিলেন।

চটকল খোলা এবং শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা মেটানোর পাশাপাশি আরও সাত দফা দাবি পূরণের কথা বলেছেন ইউনিয়নের নেতারা। তারপর সভা শেষে ওই সাত দফা দাবি সংবলিত এক স্মারকলিপি ইন্ডিয়ান জুটমিল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যানের কাছে জমা দেওয়া হয়।

ইউনিয়ন নেতাদের অভিযোগ, বহু জুট মিল এখনও বন্ধ রেখেছে মালিকরা। দীর্ঘদিন ধরে ওইসব মিল বন্ধ থাকায় শ্রমিকরা বেতন পাচ্ছেন না। ফলে শ্রমিক পরিবারগুলি চরম আর্থিক দুর্দশা মধ্যে রয়েছে। যদিও লকডাউনে বেতন কাটা যাবে না বলে রাজ্য সরকার বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল।

সরকারি নির্দেশ মিল মালিকরা মানছে না বলে অভিযোগ তুলেছেন বেঙ্গল চটকল ইউনিয়নের সভাপতি দীপক দাশগুপ্ত । তিনি ওইসব মিল মালিকদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

সিটু নেত্রী গার্গী চট্টোপাধ্যায় জানান, প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন চটের মাধ্যমে বাংলার অর্থনৈতিক উন্নতি হবে। তাই যদি প্রধানমন্ত্রী বিশ্বাস করেন তাহলে প্লাস্টিক ব্যাগের ব্যবহার বন্ধ করে চটের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা উচিত।‌ বিশেষত প্রধানমন্ত্রী গণবণ্টনে চটের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে দেওয়া উচিত বলেন তিনি মনে করেন।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।