লন্ডন: উলভসের বিরুদ্ধে লিভারপুল জিতে যাওয়ায় শীর্ষে ওঠার কোন অবকাশ ছিল না। কিন্তু ক্রিসমাসের আগে ক্রিস্টাল প্যালেস লিগ টেবিলে এগিয়ে যাওয়ার পথে যে এমন বাধা হয়ে দাঁড়াবে, ভাবতে পারেননি সিটি সমর্থকরা। ২৮ বছর পর ম্যাঞ্চেস্টার সিটিকে হারিয়ে প্রিমিয়র লিগে অঘটন ঘটাল ক্রিস্টাল প্যালেস। শনিবার ঘরের মাঠে পেপ গুয়ার্দিয়োলার ছেলেরা পরাজিত হল ২-৩ ব্যবধানে।

পিছিয়ে পড়েও ইতিহাদ স্টেডিয়ামে এদিন দুরন্ত জয় তুলে নিল রয় হজসনের ছেলেরা। গুন্দোয়ানের গোলে পিছিয়ে পড়েও এদিন দুরন্ত কামব্যাক করে ক্রিস্টাল প্যালেস। মুহুর্মুহু আক্রমণে ২৭ মিনিটে ম্যাচে ডেডলক খোলে সিটি। ডেলফের দূরপাল্লার ক্রস থেকে দুরন্ত হেডারে বল জালে জড়িয়ে দেন জার্মান মিডফিল্ডার। কিন্তু সেই লিড মিনিট ছয়েকের বেশি ধরে রাখতে পারেনি সিটি।

৩৩ মিনিটে প্রতি আক্রমণে ক্রিস্টালের হয়ে সমতা ফেরান স্ক্লাপ। ঠিক মিনিট তিনেক বাদে সিটি ডিফেন্সের দুর্বল একটি ক্লিয়ারেন্স কাজে লাগিয়ে ম্যাচে এগিয়ে যায় লন্ডনের ক্লাবটি। ৩৫ গজ দূর থেকে টাউনসেন্ডের নেওয়া গোলার মত শটের কোন উত্তর ছিল না সিটি গোলরক্ষকের কাছে। ১-২ গোলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় সিটি।

বিরতির পর সমতায় ফিরতে চাইলেও উলটে পিছিয়ে পড়ে ম্যাঞ্চেস্টারের ক্লাবটি। ৫১ মিনিটে পোস্টে লেগে প্রতিহত হওয়া বল বক্সে ক্লিয়ার করতে গিয়ে অবৈধ ফাউল করে বসেন ওয়াকার। পেনাল্টি দিতে কোনও ভুল করেননি রেফারি। স্পটকিক থেকে নেওয়া শটে ক্রিস্টালের হয়ে ব্যবধান ৩-১ করেন মিলিভোজেভিচ। ম্যাচে ফেরৎ আসতে ডেলফের পরিবর্তে ৬৩ মিনিটে দে ব্রুয়েনাকে মাঠে নামান গুয়ার্দিয়োলা। আক্রমণে আরও ধার বাড়ে স্কাই ব্লু ব্রিগেডের। এরই মাঝে ৭৬ মিনিটে সানের ফ্রি-কিক পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়।

৮৫ মিনিটে বিপক্ষ গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে দুরন্ত ক্রস জালে জড়িয়ে দেন পরিবর্ত ব্রুয়েনা। বেলজিয়ান মিডফিল্ডারের গোলে প্রাণ ফিরে আসে নিস্তেজ ইতিহাদে। তবে বাকি সময়টা ক্রিস্টাল রক্ষণ ভেঙে সমতা ফেরানো সম্ভব হয়নি সিটির। ফলে ২-৩ গোলে হেরেই মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। হারের পর ১৮ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানেই রইল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি।

লিগের অন্য ম্যাচে এদিন আউবামেয়াংয়ের জোড়া গোল এবং আইয়োবির একমাত্র গোলে বার্নলেকে ৩-১ গোলে হারাল আর্সেনাল। ম্যাচে ১৪ এবং ৪৮ মিনিটে দুটি গোল করেন গ্যাবনের স্ট্রাইকার। অন্যদিকে ম্যাচের অতিরিক্ত সময় একটি গোল আসে নাইজেরিয়ান আইয়োবির পা থেকে। ৬৩ মিনিটে বার্নলে একটি গোল শোধ করলেও তাতে গানার্সদের জয়ে কোনওরকম বাধা হয়নি। জয়ের পর লিগ টেবিলে যদিও অবস্থান বদলালো না আর্সেনালের। ১৮ ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চমস্থানেই রইল তারা।