আমস্টারডাম: আয়াক্সের বিরুদ্ধে ফিরতি লেগের কঠিন লড়াইয়ের আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, ‘চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতলে টটেনহ্যাম কোচের পদ থেকে অব্যাহতি নেবেন তিনি।’ কিন্তু প্রথম লেগে ১ গোলে পিছিয়ে থাকার পর বুধবার ফিরতি লেগের প্রথমার্ধে আরও দু’গোল হজম করে ফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন কার্যত চলে গিয়েছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে।

কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে লুকাস মউরা ম্যাজিকে অসাধ্য সাধন করে স্পারসরা। শেষ বাঁশি বাজার মুহূর্তখানেক আগে ডেলে আলির পাস থেকে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের বাঁ-পায়ের ভলি জালে জড়াতেই আবেগে ভাসেন পোচেত্তিনো। ম্যাচ শেষে আবেগে চোখের জল আর ধরে রাখতে পারেননি স্পারসদের আর্জেন্তাইন ম্যানেজার। প্রায় ২০ মিনিট ছেলেদের সঙ্গে মাঠেই বাঁধনহারা সেলিব্রেশনে মেতে ওঠেন তিনি।

এরপর মিডিয়াকে পোচেত্তিনো বলেন, ‘জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটা রাত। আবেগ ভাষায় ব্যাখ্যা করা কঠিন।’ একইসঙ্গে দলের ছেলেদের উদ্দেশ্যে স্পারসদের হেডস্যার বলেন, ‘ওদেরকে আমি আগেই নায়কের সম্মান দিয়েছিলাম, আজ থেকে ওরা আমার কাছে সুপারহিরো।’

একইসঙ্গে সেমিফাইনালের অবিশ্বাস্য জয় নিয়ে বলতে গিয়ে পোচেত্তিনো জানান, ‘আমার কাছে ফাইনালে যাওয়াটা মিরাকল ছাড়া কিছুই নয়। মরশুমের শুরুতে আমাদের উপর কেউ বিশ্বাস রাখতে চায়নি। তবে যোগ্য দল হিসেবেই আমরা আজ ফাইনালে পৌঁছেছি। ছেলেদের অনেক অভিনন্দন। ওরা ফুটবলটাকে আপন করে নিয়েছে এবং নিজেদের কাজটা সঠিকভাবে করে গিয়েছে।’

ম্যাচ শেষে অনুরাগী থেকে ফুটবল বিশেষজ্ঞরা স্পারসদের দ্বিতীয়ার্ধের লড়াইকে কুর্নিশ জানালেও পোচেত্তিনো বলেন, প্রথমার্ধটা আমাদের কাছে নির্দয় ছিল। এত সুযোগ পেয়েও কিভাবে পিছিয়ে পড়েছিলাম জানি না। তবে দ্বিতীয়ার্ধে কিছু পরিবর্তন এবং নিজেদের প্রতি বিশ্বাস আমাদের এই জয় এনে দিয়েছে। গত পাঁচবছরের পরিশ্রমের ফল এটা।’

আবেগে গলা ভারি হয়ে আসলেও শেষ অবধি পোচেত্তিনো ধন্যবাদ জানান ফুটবলকে, ধন্যবাদ জানান সমর্থকদের। সর্বোপরি আর্জেন্তাইন কোচ ধন্যবাদ জানান ছেলেদের, যাদের জন্য এমন একটা রাত উপহার পাওয়া সম্ভব হয়েছে।

উল্লেখ্য, জোহান ক্রুয়েফ এরিনায় ম্যাচের ৫ মিনিটের মাথায় লাস শোনের পাস থেকে গোল করে আয়াক্সকে এগিয়ে দেন ম্যাথিস ডি’লাইট। ৩৫ মিনিটে দুসান তাদিচের পাস থেকে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুন করেন হাকিম জিয়েচ। লুকাস ৫৫ মিনিটে ডেলে আলি ও ৫৯ মিনিটে ভেল্টম্যানের পাস থেকে গোল করে টটেনহ্যামকে সমতায় ফেরান৷ ইনজুরি টাইমের একেবারে শেষ মুহূর্তে (৯০+৬ মিনিট) ডেলে আলির পাস থেকেই আয়াক্সের কফিনে শেষ পেরেক পুঁতে দেন লুকাস।