লন্ডন: চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অবশেষে ছন্দে ফিরল টটেনহ্যাম হটস্পার৷ আগের ম্যাচে গ্রুপ বি-তে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ২-৭ গোলে পর্যুদস্ত হওয়ার পর ঘরের মাঠে রেড স্টার বেলগ্রেডকে ৫-০ হারিয়ে ছন্দে ফিরল হ্যারি কেনরা৷

কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাওয়া টটেনহ্যাম উড়িয়ে রেড স্টার উড়িয়ে দিয়ে হয়ে উঠল ফাইভ-স্টার৷ অলিম্পিয়াকোসের বিরুদ্ধে ড্র করার পর বায়ার্ন মিউনিখের কাছে নাস্তানাবুদ হয়েছিল টটেনহ্যাম৷ কিন্তু এদিন রেড স্টার বেলগ্রেডকে হারিয়ে চলতি মরশুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জয়ের মুখ দেখল কেনরা৷ বুধবার অন্য ম্যাচে অলিম্পিয়াকোসের বিরুদ্ধে ৩-২ কষ্টার্জিত জয় পেয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ৷

উত্তর লন্ডনে ঘরের মাঠে ম্যাচের প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় টটেনহ্যাম। ৯ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন কেন। এরপর ১৬ ও ৪৪ মিনিটে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়ে ব্যবধান পান টটেনহ্যামের দক্ষিণ কোরিয়ান ফরোয়ার্ড সন হিউং-মিন। ম্যাচের বাকি দু’টি গোল আসে দ্বিতীয়ার্ধে৷
দারুণ ফুটবল খেলে ম্যাচের ৫৭ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান এরিক লামেলা৷ এরপর ৮৩ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় ও দলের হয়ে পঞ্চম গোলটি করে ইংরেজ স্ট্রাইকার কেন।

এই জয়ের ফলে যেন পুনর্জন্ম হল টটেনহ্যামের৷ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আগের রাউন্ডে বায়ার্নের কাছে পর্যুদস্ত হওয়ার পর ফের ধাক্কা খেয়েছিল টটেনহ্যাম। ইংলিশ প্রিমিয়র লিগে ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিওনের কাছে ৩-০ গোলে হারে কেনের দল৷ তারপর ১-১ গোলে ড্র করে ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে। কিন্তু এদিন বেলগ্রেডের জালে গোল উৎসব করে যেন কক্ষপথে ফেরার ইঙ্গিত দিল গতবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ রানার্সরা।

এদিন অন্য ম্যাচে অলিম্পিয়াকোসের বিরুদ্ধে কষ্টার্জিত জয় পায় বায়ার্ন৷ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আগের ম্যাচে টটেনহ্যামের জালে ওই গোলের বন্যা করার পর বুন্দেসলিগায় হফেনহাইমের কাছে হারতে হয় জার্মান জায়ান্টদের। লিগে পরের ম্যাচে আউক্সবুর্কের বিপক্ষে ড্র করে ছন্দের খোঁজে ছিল বায়ার্ন। কিন্তু বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জয় দিয়ে ফের ছন্দে ফিরল জার্মান ক্লাবটি৷

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে ঘরের মাঠে ২৩ মিনিটে এল আরাবির গোলে এগিয়ে যায় অলিম্পিয়াকোস। কিন্তু ৩৪ মিনিটে বায়ার্নকে সমতায় ফেরান লেভানদোভস্কি। এই গোলের ফলে ডাচ স্ট্রাইকার রুড ফন নিস্তেলরয়কে (৫৬) পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বকালের সেরা গোলদাতার তালিকার ৫ নম্বরে উঠে আসেন লেভানদোভস্কি।

৬২ মিনিটে বায়ার্নকে এগিয়ে নেন তিনি। চলতি মরশুমে ১৩ ম্যাচে এটি তাঁর ১৮ নম্বর গোল। ৭৫ মিনিটে ব্যবধান ৩-১ করে ফেলেন কোরেনতিন তোলিসো। কিন্তু চার মিনিট পর রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে গুইলহের্মোর গোলে ব্যবধান কমিয়ে ম্যাচ জমিয়ে দেন অলিম্পিয়াকোস৷ যদিও হার এড়াতে পারেনি তারা।

টানা তৃতীয় জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ বি-তে শীর্ষে রয়েছে বায়ার্ন। আর ৪ পয়েন্ট নিয়ে দু’ নম্বরে উঠে এসেছে টটেনহ্যাম। ৩ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে আছে রেড স্টার বেলগ্রেড। অলিম্পিয়াকোসের পয়েন্ট ১।