কলকাতা: পুজোর বাকি আর মাত্র কটা দিন। আর পুজোর ঠিক আগেই অসুররূপী নিম্নচাপের জেরে জেরে মাথায় হাত পুজো উদ্যোক্তাদের। গত মঙ্গলবার থেকে সমগ্র পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে শুরু হয়েছে নিম্নচাপের বৃষ্টি। এর ফলে ব্যাপক সমস্যায় পড়তে হচ্ছে জেলার পুজো উদ্যোক্তাদের।

জেলার এগরা, পটাশপুর, তমলুক, মহিষাদল, হলদিয়া-সহ একাধিক স্থানে এমন পরিস্থিতি হওয়ায় শেষ মুহূর্তের কাজ শেষ করতে বিপাকে পুজো উদ্যোক্তাদের।
উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার থেকে জেলা জুড়ে শুরু হয় নিম্নচাপের বৃষ্টি। যা বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কিছুটা কমলেও তা দুপুর থেকে আবার আগের রূপ নেয়। তাই সমস্যায় পড়ছেন জেলার বিগ বাজেটের পুজো উদ্যোক্তারা।

বর্তমানে সমস্ত স্থানেই থিমের ছড়াছড়ি। আর এর জন্য পরস্পরকে টেক্কা দিতে প্রায় দু‍মাস আগে থেকেই শুরু হয়েছে মণ্ডপের যাবতীয় কাজকর্ম। তবে শেষ মুহূর্তে এসে যেভাবে অসুররূপী বৃষ্টি কাল করল তাতে মণ্ডপের কাজ নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগছেন মণ্ডপ শিল্পীরাও। বেশিরভাগ জায়গাতেই থিম-কেন্দ্রিক পুজো মণ্ডপ হয়। যার ফলে গত কয়েকমাস ধরে জোর কদমে চলছিল মণ্ডপের কাজকর্ম।

কিন্তু বৃষ্টি যেভাবে পথে কাঁটা ফেলল তাতে পুজোর আগে জোর ধাক্কা বলে মনে করছেন সকলে। এর পাশাপাশি গভীর সমস্যায় পড়তে হচ্ছে জেলার মৃৎশিল্পীদেরকেও। হঠাৎ করে নিম্নচাপের বৃষ্টি শুরু হয়ে যাওয়ায় প্রতিমা শুকোতে এখন নাজেহাল হচ্ছে মৃৎশিল্পীরা। অনেক শিল্পীদের মহালয়ার দিন প্রতিমা ডেলিভারি করার কথা ছিল। কিন্তু এভাবে হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হয়ে যাওয়ায় এখন অনিশ্চয়তার মুখে মৃৎশিল্পীরা। আর এরফলে গ্যাসে আগুন জ্বালিয়ে প্রতিমা শুকোতে হচ্ছে শিল্পীদের।

সব মিলিয়ে এখন বলাই চলে মৃৎ ও মণ্ডপশিল্পী-সহ পুজো উদ্যোক্তারা বৃষ্টির জেরে ব‍্যাপক সমস্যার সম্মুখীন। জেলার একাধিক মণ্ডপের সামনে এখন প্রায় হাঁটু জল সমান। এর ফলে মণ্ডপ তৈরির কাজে ব্যাপকভাবে বিঘ্ন ঘটছে। তবে মণ্ডপের ভিতরের কাজ এখন চালিয়ে যাচ্ছে মণ্ডপ শিল্পীরা। মহিষাদলের উত্তর কাশিমনগরের পুজো-সংস্থা বনশ্রীর উদ‍্যোক্তা দীপাঞ্জন সান্ধকী জানান,”কয়েকদিনের বৃষ্টির জেরে মণ্ডপের সামনে সম্পূর্ণভাবে জল জমা হয়ে গিয়েছে। এর ফলে আমাদের পুজোর আগে ব‍্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। শীঘ্র বৃষ্টি না থামলে আরও সমস্যায় পড়তে হবে আমাদের।”

বৃষ্টি থামার আশায় এখন সকলে বুক বাঁধলেও আবহাওয়া দফতর থেকে তেমন কোনও বার্তা নেই। হলদিয়ার হাজরামোড় মৈত্রীভূমি দুর্গ‍্যোৎসব কমিটির সম্পাদক আশিস হাজরা বলেন,”বৃষ্টির জন্য মণ্ডপের বাইরের কোনও কাজই এগনো যাচ্ছে না। মণ্ডপের ভিতরের কাজ কোনও ক্রমে চলছে।”

সব মিলিয়ে নিম্নচাপের অসুররূপী বৃষ্টির জেরে এখন চরম সমস্যায় সকলে। খুব শীঘ্রই এই বৃষ্টি না থামলে পুজোর আগে আরও সমস্যায় পড়তে হবে উদ‍্যোক্তাদের।