নয়াদিল্লি: স্পেশাল স্ট্যাটাস উঠে যাওয়ার পর থেকেই কাশ্মীরে বন্দি একাধিক নেতা ও নেত্রী। গত বছরের আগস্ট মাসে কাশ্মীর থেকে 370 ধারা তুলে নেয় কেন্দ্রীয় সরকার তারপর থেকেই বন্দি মেহবুবা মুফতি, ওমর আব্দুল্লাহ ফারুক আব্দুল্লাহ। এবার তাদের মুক্তি দেওয়ার বার্তা দিল আমেরিকা।

সম্প্রতি নয়াদিল্লি সফরে এসেছিলেন মার্কিন দুধ এলিস ওয়েলস। এখানে এসে তিনি কাশ্মীরের নেতাদের দ্রুত মুক্তি দেওয়ার কথা বলেন। এদিকে এতদিন বাদে ইন্টারনেট ফিরে আসার বিষয়টিতে আমেরিকা খুশি বলে জানিয়েছেন তিনি। সরকারের কাছে আর্জি জানিয়েছেন যাতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত দের কাশ্মীরে নিয়মিত যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। কোন মামলা ছাড়াই কাশ্মীরি নেতাদের মুক্তি দিতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

চলতি মাসের শুরুতে ১৫ টি দেশের কূটনীতিকদের কাশ্মীরের যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় গত বছরের আগস্ট মাসে স্পেশাল স্ট্যাটাস তুলে নেওয়ার পর এই প্রথমবার বিদেশি কূটনীতিকদের কাশ্মীরে যেতে দেওয়া হলো।

যদিও কূটনীতিকদের সঙ্গে কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ ওমর আব্দুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতি কে দেখা করতে দেওয়া হয়নি।

এদিকে ভারত সফরে এসে সি এ এ সম্পর্কে আরও বেশি তথ্য সংগ্রহ করেছেন আমেরিকার রাষ্ট্রদূতেরা। নাগরিকত্ব আইন সম্পর্কে পরে তিনি বলেন, “বিষয়টি নিয়ে অনেকে পথে নেমেছেন। রাজনৈতিক বিরোধীরা সরব হয়েছেন। মিডিয়ায়, কোর্টে, সব জায়গায় ওই আইন নিয়ে চর্চা হচ্ছে। আমরা বরাবরই বলে আসছি আইনত সকলেরই সমান সুরক্ষা পাওয়া উচিত।”

সামগ্রিকভাবে ভারতের বিদেশনীতি সম্পর্কে তিনি বলেন, একসময় এই দেশ আন্তর্জাতিক নানা বিষয়ে তারা বিশেষ প্রতিক্রিয়া জানাত না। কিন্তু গত দুই দশক ধরে তারা নিজেদের স্বার্থে মুখ খুলছে। ভারতের বিদেশনীতি হয়ে উঠেছে আক্রমণাত্মক।