ইসলামাবাদ: পাকিস্তানে আকাশ ছুঁল টমেটোর দর। মঙ্গলবার পাকিস্তানে টমেটোর দাম পৌঁছল ৪০০ টাকা কেজি প্রতিতে। সোমবার যে দাম ছিল ৩০০ থেকে ৩২০ টাকা, মঙ্গলবার একলাফে প্রায় ৮০-১০০ টাকা বেড়ে সেই দাম হয় ৪০০ টাকাতে।

জানা যাচ্ছে, ইরানি টমেটো বাজারে না পৌঁছতেই পাকিস্তানে টমেটোর দামের এই বিশাল বৃদ্ধি ঘটেছে। পাকিস্তানে যেখানে প্রায় ৪৫০০ টন টমেটো আসে, সেখানে এবার টমেটো এসেছে মাত্র ৯৮৯ টন। যোগানে ঘাটতি থাকার ফলে ব্যাপক ফারাক ঘটেছে টমেটোর দামে। এই মুহূর্তে পাকিস্তানের মানুষের বক্তব্য, এত দাম দিয়ে তারা টমেটো কখনও কেনেননি।

বেশ কিছু পাক পাইকারি সবজি বিক্রেতাদের বক্তব্য, ফেডারেল গর্ভমেন্ট সাধারণ ব্যবসায়ীদের আমদানি বন্ধ করে, নির্দিষ্ট কিছু ব্যবসায়ীকে আমদানির অনুমতি দিয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে টমেটোর যোগান হচ্ছে সীমাবদ্ধ। আর তা বাজারে শেষ হওয়ার দিকে এগোতেই হু হু করে বাড়ছে দাম। তাঁদের বক্তব্য, আগে খোলা আমদানি বাজারে টমেটোর দাম কিছুটা নিয়ন্ত্রণে রেখেছিল। কিন্তু সে রাস্তা বন্ধ হওয়াতে চড়চড় করে বাড়ছে দাম।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের সবজির বাজার মাসখানেক আগে থেকেই অস্থিতিশীল অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। যার জেরে মাত্র সপ্তাহখানেক আগেই পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ইরান থেকে আমদানি করা হবে টমেটো। কিন্তু সেই আমদানির বিষয় পুরোপুরি সফল না হওয়ারই প্রমাণ দিচ্ছে পাকিস্তানে টমেটোর দাম।

অক্টোবরে খারাপ আবহাওয়া ও ব্যাপক বৃষ্টির কারণে পাকিস্তানে টমেটোর আমদানি হ্রাস পেয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। ফলে বাজার করতে গিয়ে নাভিশ্বাস উঠেছে পাকিস্তানের সাধারণ মানুষের।

পাকিস্তানের সবজি বাজারের পরিস্থিতি যখন একদিকে এমন, অন্যদিকে ভারত সহ নানান দেশের সন্ত্রাস সংক্রান্ত ইস্যুতে বিশ্বের দরবারে রীতিমতো ব্যাকফুটে রয়েছে পাকিস্তান, এমনই অভিমত সচেতন মহলের। যদিও মুখোমুখি সেকথা মানতে নারাজ ইমরান খানের সরকার।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ