কলকাতা: আজই (বুধবার) ২,২৪৩ জন প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষিকা নিয়োগের প‍্যানেল লিস্ট প্রকাশ করা হবে৷ কাউন্সিলিং হবে চলতি মাসের ২২, ২৪ ও ২৫ তারিখ৷ অন্যদিকে উচ্চ মাধ্যমিকের পর এবার নজরে মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া৷ মার্চের মধ্যেই এই নিয়োগ পক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে৷ জানালেন স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান সৌমিত্র সরকার৷ মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার প্রথম দফার সুপারিশের পর প্রার্থীদের নিয়োগপত্র দেওয়ার কাজ চলছে৷ অন্যদিকে

মঙ্গলবার এসএসসির চেয়ারম্যান সৌমিত্র সরকার বলেন, ‘মার্চের মধ্যেই ২২,৬৭৮টি শূন্যপদ পূরণ হবে৷ নাইন ও টেনের জন্য মোট শূন্যপদ রয়েছে ১২,৯০৫টি। এর মধ্যে সুপারিশ হয়েছে ৬,৫২৪টি। ক্লাস ইলেভেন ও টুয়েলভের জন্য শূন্যপদ রয়েছে ৫,৭১১। সুপারিশ হয়েছে ৪,৮৮৯। শিক্ষক, অশিক্ষক কর্মীর সঙ্গেই অশিক্ষক কর্মচারী ও গ্রুপ ডি-এর র শূন্য পদও ভরতি হবে৷’

স্কুল শিক্ষায় পড়ুয়া শিক্ষক অনুপাতে সাম্যতা আনতে সোমবারই ইনটার্ন শিক্ষক নিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ বলা হয় সদ্য কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে পাস করা পড়ুয়াদের স্কুলে ইন্টার্ন শিক্ষক হিসাবে নিয়োগ করা যেতে পারে৷ এক্ষেত্রে তাদের কাজের মেয়াদ হবে দু’বছর৷ উচ্চ প্রাথমিতে দুই হাজার ও পরের ধাপের জন্য ইন্টার্ন শিক্ষকদের ভাতা হবে আড়াই হাজার৷ প্রশ্ন উঠতে শুরু করে এসএসসিকে এড়িয়ে কীভাবে এই নিয়োগ সম্ভব৷ তারপরই মঙ্গলবার মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করার ঘোষণা করা হয়৷ তাহলে কী ইন্টার্ন বিতর্ক এড়াতেই তড়িঘড়ি এই পদক্ষেপ?