শেখর দুবে, ঝাড়গ্রাম: সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে ঝাড়গ্রামে তৃণমূল প্রার্থী বীরবাহা সরেন৷ এবার বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করলেন সাঁওতালি সিনেমার অভিনেত্রী বীরবাহা হাঁসদা৷ কলকাতা২৪x৭-কে বীরবাহা হাঁসদা জানান মাঝি পরগণার সঙ্গে একপ্রকার বিশ্বাসভঙ্গ করা বীরবাহা সরেনকে জবাব দেওয়ার জন্যই তিনি সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে ঝাড়খন্ড পার্টি(নরেন)-এর টিকিটে নির্বাচন লড়বেন৷

বীরবাহা হাঁসদা বলেন, ‘‘ বীরবাহা সরেনের স্বামী রবিন টুডু সাঁওতাল সমাজের মাঝি পরগণা মহলের তিনটে জেলার প্রধান৷ তিনি একসময় সাঁওতাল সমাজ থেকে রাজনীতিকে দূরে রাখার কথা বলে কোনও রকম রাজনৈতিক দলের হয়ে নির্বাচন লড়তে বাধা দিতেন অন্যদের৷ যে সব সাঁওতাল প্রার্থীরা কোনও রাজনৈতিক দলের হয়ে প্রার্থী হতেন তাদের সামাজিকভাবে একঘরে করে দিতেন রবিন৷ এছাড়াও সাঁওতাল সমাজে নানা ধরনের চাপের মুখে পড়তে হত সেই সব প্রার্থীদের৷ অথচ আজ তিনিই ব্যক্তিগত স্বার্থের কারণে নিজের স্ত্রী বীরবাহা সরেনকে তৃণমূলের টিকিটে নির্বাচনে দাঁড় করিয়েছেন৷ তাই এর জবাব দিতেই আমি এই নির্বাচন লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷’’

সম্প্রতি তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা সামনে আসার পর বীরবাহা বনাম বীরবাহা বিতর্ক তৈরি হয়েছে ঝাড়গ্রামে৷ বাংলার এই কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী বীরবাহা সরেন৷ আর এই নামই বিতর্কের কারণ৷ তৃণমূলের এই প্রার্থীর প্রচার ব্যানারে ব্যবহার করা হয়েছে সাঁওতালি অভিনেত্রী এবং নরেন হাঁসদার মেয়ে বীরবাহা হাঁসদার ছবি৷ এতে প্রচন্ড ক্ষুদ্ধ বীরবাহা হাঁসদা৷ পুরো বিষয়টি নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করে নিজের ফেসবুক ওয়ালে বেশ কয়েকটি পোস্টও করেন৷

একটি ফেসবুক পোস্টে বীরবাহা হাঁসদা লেখেন, ‘‘ আমার সাথে যা হচ্ছে সেটা নিয়ে আইনি ব্যবস্থা নিলে আমার কোনো লাভ হবে বলে মনে হয় না৷ নির্বাচন কমিশনকেও ঠুঁটো জগন্নাথ করে রাখা হয়েছে৷ কারণ গত বিধানসভা ভোটে আমার নাম করে TMC পার্টি খুব বাজে ভাষায় গালাগালি দিয়ে প্রচার করে৷ আমি prove সমেত নির্বাচন কমিশনকে জানালেও কিছু করা হয়নি৷ সবাই সমান৷’’

ঝাড়গ্রামের পুরনো রাজনৈতিক পরিবারের মেয়ে বীরবাহা হাঁসদা৷ একসময় ঝাড়গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রে প্রভাবশালী রাজনৈতিক দল ছিল ঝাড়খন্ড পার্টি(নরেন)৷ জঙ্গলমহলে সাঁওতাল সমাজে নরেন হাঁসদার যথেষ্ট গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে৷ এই নরেন হাঁসদারই মেয়ে বীরবাহা হাঁসদা৷ এছাড়াও সাঁওতালি সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী বীরবাহা৷ তাই বীরবাহা হাঁসদার জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে ইচ্ছাকৃতভাবেই তৃণমূল প্রার্থী বীরবাহা সরেনের প্রচার ব্যানারে ব্যবহার করা হয়েছে বীরবাহা হাঁসদার ছবি৷ এমনটাই অভিযোগ তুললেন বীরবাহা হাঁসদা নিজেই৷