বেজিং: বাড়তি লাগেজের জন্য বড়তি টাকা গুণতে হলে কারই বা ভালো লাগে৷ পর্যটকদের কাছে এটি সত্যই অত্যন্ত বিরক্তির বিষয়৷ কিন্তু তা বলে গ্যাঁটের কড়ি বাঁচাতে এমন অবাক করা কাণ্ড!

লাগেজের খরচ বাঁচাতে ৩০ কিলো কমলালেবু খেয়ে ফেললেন দুই চিনা পর্যটক৷ তাও আবার ৩০ মিনিটে! দক্ষিণ-পশ্চিম চিনের ইউনান প্রদেশের কানমিং বিমানবন্দরে এই ঘটনাটি ঘটে৷ জানা গিয়েছে, ওই দুই চিনা পর্যটকের মধ্যে একজনের নাম ওয়াং৷ তিনি এবং তাঁর সহকর্মী ৫০ ইউয়ান (ভারতীয় মুদ্রায় ৫৬৪ টাকা) দিয়ে ৩০ কিলোগ্রাম ওজনের কমলালেবুর একটি বাক্স কিনেছিলেন৷ এক সঙ্গে বিজনেস ট্রিপে যাচ্ছিলেন তাঁরা৷

ফ্লাইট ধরার জন্য বিমানবন্দরে পৌঁছতেই তাঁদের জানানো হয়, প্রতি কেজি ফলের জন্য ১০ ইউয়ান দিতে হবে৷ সব মিলিয়ে হয় ৩০০ ইউয়ান (ভারতীয় মুদ্রায় ৩,৩৮৪ টাকা)৷ টাকার অঙ্ক শুনে ওয়াং ও তাঁর সহকর্মীর চক্ষু তখন চড়ক গাছ৷ এত টাকা তাঁরা দিতে পারবে না বলেই ঠিক করেন৷ কিন্তু এই বাক্স নিয়ে কী করা যায়? সেই উপায়ও নিমেষে খুঁজে বার করে ফেলেন তাঁরা৷

ঠিক করলেন সেই মুহূর্তেই বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে সব কটা কমলালেবু খেয়ে ফেলবেন৷ আর সেই মতোই কাজ সারা৷ আধ ঘণ্টার মধ্যে ৩০ কিজি লেবু গলাধঃকরণ করে ফেললেন৷ যা দেখে হতভম্ভ বিমানবন্দরের কর্মীরাও৷
ওয়াং গ্লোবাল টাইমসকে জানান, ‘‘‘আমরা কেবল ওখানে দাঁড়িয়েছি এবং সবটা খেয়ে ফেলেছি৷ এর জন্য মাত্র ২০ থেকে ৩০ মিনিটে লেগেছে৷’’ বোঝো কাণ্ড!

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।