স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: এসএমএস-এ প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল শিক্ষকদের হাজিরা পদ্ধতি চালু হল বাঁকুড়ার খাতড়া মহকুমায়। শনিবার থেকেই জেলা প্রশাসনের নির্দেশে এই পদ্ধতি চালু হয়। খাতড়া মহকুমা শাসক রাজু মিশ্রের স্বাক্ষর করা এই নির্দেশ আগেই পৌঁছে গিয়েছিল সংশ্লিষ্ট এলাকার বিডিওদের কাছে।

খাতড়া মহকুমা প্রশাসন সূত্রে খবর, গত 24 অগাষ্ট রানীবাঁধ ও খাতড়া ব্লক এলাকায় প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে এসএমএস-এ শিক্ষকদের হাজিরা পদ্ধতি চালু হয়। ওই দুই ব্লকে শিক্ষকদের হাজিরার এই পদ্ধতি সফলতার মুখ দেখায় শনিবার থেকে মহকুমা এলাকার বাকি ছ’টি ব্লক হীড়বাঁধ, সারেঙ্গা, রাইপুর, তালডাংরা, সিমলাপাল ও ইন্দপুরে এসএমএস-এ শিক্ষকদের হাজিরা পদ্ধতি চালু করা হয়৷

মহকুমা প্রশাসনের নির্দেশে অনুযাই সংশ্লিষ্ট স্কুল গুলিকে শিক্ষকদের হাজিরা দিনে দু’বার নির্দিষ্ট একটি নম্বরে এসএমএস করে জানাতে হবে। হাই স্কুল, জুনিয়র হাই স্কুল, মডেল স্কুলগুলির ক্ষেত্রে প্রথম ম্যাসেজ সকাল ১০.৪৫ থেকে ১১টা ও দ্বিতীয় ম্যাসেজ বিকেল ৪.২০ থেকে ৪.৩০-র মধ্যে পাঠাতে হবে। প্রাথমিক ও এস.এস.কে-র ক্ষেত্রে প্রথম ম্যাসেজ সকাল সাড়ে দশটা থেকে এগারোটা ও দ্বিতীয় ম্যাসেজ বিকেল ৩.২০ থেকে ৩.৩০-র মধ্যে পাঠাতে হবে।

এছাড়াও প্রাথমিক স্কুল গুলির প্রাতঃ বিভাগে প্রথম ম্যাসেজ পৌনে সাতটা থেকে সাতটার মধ্যে ও দ্বিতীয় ম্যাসেজ সকাল পৌনে দশটা থেকে দশটার মধ্যে পাঠাতে হবে। এসএমএসেই শিক্ষকদের উপস্থিতি জানা যাবে৷ পাশাপাশি স্কুলেরই অন্য কাজে কেউ যুক্ত থাকলেও তা জানাতে হবে এসএমএস করে৷

জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, প্রথম পর্যায়ে শুধুমাত্র খাতড়া মহকুমা এলাকায় এই ব্যাবস্থা চালু হলেও আগামী দিনে ধাপে ধাপে জেলার বাঁকুড়া সদর ও বিষ্ণুপুর মহকুমাতেও শিক্ষকদের এভাবেই হাজিরা পদ্ধতি চালু হবে। এবিষয়ে খাতড়া মহকুমা শাসক রাজু মিশ্র কলকাতা24×7কে জানান, ‘‘শিক্ষকদের এসএমএস পদ্ধতিতে হাজিরা চালু হল।

বিগত বেশ কয়েক মাস ধরে জেলার বিভিন্ন স্কুলে শিক্ষকদের নির্দিষ্ট সময়ের পরে স্কুলে পৌঁছানোর অভিযোগ আসছিল৷ হাজিরার নতুন এই পদ্ধতিতে সমস্যার সমাধান হবে বলে মনে করছে প্রশাসন৷ হাজিরা পদ্ধতিকে স্বাগত জানানো হয়েছে বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠনের তরফেও৷

আরও পড়ুন: ক্লাসেই নিদ্রা গেলেন শিক্ষক, ভাইরাল ছবি

তবে রয়েছে কিছু বিভ্রান্তিও৷ নিখিলবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির তালডাংরা-সিমলাপাল অঞ্চলের সম্পাদক ও সংগঠনের বাঁকুড়া জেলা কমিটির সদস্য তন্ময় কুণ্ডু বলেন, ‘‘বাঁকুড়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের নির্দেশে প্রাথমিক স্কুলগুলির ছুটির সময় বিকেল চারটে। কিন্তু খাতড়া মহকুমা প্রশাসনের জারি করা নির্দেশে বলা হয়েছে ছুটির সময় বিকেল সাড়ে তিনটে। জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ ও মহকুমা প্রশাসনের স্কুল ছুটির নির্দেশিকা নিয়ে জটিলতা তৈরী হচ্ছে।’’