স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কলকাতা পুলিশের প্রাক্তন কমিশনার রাজীব কুমারকে সিজিও কমপ্লেক্সে রাজ্যের সিবিআই সদর দফতরে হাজিরা দেওয়ার জন্য তিন জায়গাতে নোটিশ জারি করেছে সিবিআই৷ রাজীবের বিরুদ্ধে আগেই লুক আউট নোটিশ জারি করেছিল সিবিআই৷ স্বাভাবিকভাবেই দেশ ছাড়তে পারবেন না রাজীব৷ সিবিআই সূত্রের খবর রবিবার সারাদিন রাজীবকে ফোন করে যোগাযোগ করতে পারেনি সিবিআই আধিকারীকরা৷

তারপরই পার্কস্ট্রিটে রাজীবের আবাসন, ভবানীভবন পুলিশ হেড কোয়ার্টাস এবং উত্তরপ্রদেশে রাজীবের বাড়িতে নোটিশ দিয়েছিল সিবিআই৷ যেখানে বলা হয়েছিল সোমবার সকাল ১০ টার মধ্যে কলকাতায় সিবিআইয়ের দফতর সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরা দিতে হবে প্রাক্তন কলকাতা পুলিশ কর্তাকে৷ নোটিশে নির্ধারিত সময়ের এক ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও সিজিওতে হাজিরা দিতে আসেননি রাজীব কুমার৷ স্বাভাবিকভাবেই রাজীবের গ্রেফতারির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে৷ কিন্তু সিজিওতে না এসেও সিবিআইয়ের কাছে সময় চাইতে পারেন কলকাতা পুলিশের প্রাক্তন কমিশনার৷ এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ৷

সূত্রের খবর রাজীব এখন তাঁর উত্তরপ্রদেশের বাড়িতে রয়েছেন৷ সোমবারক সকাল দশটার মধ্যে কলকাতার সিবিআই সদর দফতরে হাজিরা দিতে না এলেন গ্রেফতারি এড়াতে তিনটি পদক্ষেপ নিতে পারেন প্রাক্তন পুলিশ কর্তা৷ অন্তরালে থেকে যা করতে পারেন রাজীব কুমার,

১) সিজিও সিবিআই দফতরে হাজিরা না দিয়ে তার আইনজীবী পাঠিয়ে সময় চাইতে পারেন।
কিন্তু খবর লেখা পর্যন্ত তার কোনও আইনজীবীকে সিজিওতে ঢুকতে দেখা যায়নি
২) আইনজীবীর পরিবর্তে সিবিআই দফতরে ই মেইল করে সময় চাইতে পারেন রাজীব কুমার
৩) নিম্ন আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করতে পারেন আইনজীবীর মাধ্যমে৷

প্রসঙ্গত সারদা কর্ণধার সুদীপ্ত সেনের লাল ডায়েরি, পেনড্রাইভ কোথায় গেল? কেন প্রভাবশালী বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হল না? কয়েকমাস আগে এসব প্রশ্নেরই উত্তর রাজীব কুমারের থেকে জানতে চেয়েছিল সিবিআই৷ অভিযোগ, রাজীব কুমার প্রতিবারই এড়িয়ে গিয়েছিলেন সিবিআইকে৷ সেখান থেকেই শুরু রাজীব-সিবিআই টানাপোড়েন৷

ব্যবধান মাত্র মাস চারেকের৷ চলতি মাসের ফেব্রুয়ারির ৩ তারিখের পর রবিবার ফের রাজীব কুমারের খোঁজে তাঁর কলকাতার বাস ভবনে যায় সিবিআই আধিকারিকরা৷ প্রথমে নগরপালের লাউডন স্ট্রিটের বাড়িতে যায় চার সদস্যের সিবিআই আধিকারিকদের দল৷ কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল সেখানে থাকেন না শুনে তারা চলে যান পার্কস্ট্রিটের পুলিশ কোয়ার্টারে৷ বর্তমানে এখানেই থাকেন রাজীব কুমার৷ সেখানে এবং ভবানীভবনে রাজীব কুমারকে সিজিওতে আসার নোটিশ দেয় সিবিআই৷