স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: এবিভিপির দখলে চলে যাওয়া একটি পার্টি অফিস পুনর্দখল করল টিএমসিপি৷ এবিভিপি দখল করার পরেই পার্টি অফিসটিকে গেরুয়া রং করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ৷ বৃহস্পতিবার সেই রং মুছে ফেলে নতুন করে সাজিয়ে টিএমসিপি সেই কার্যালয় দখল করল৷

উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটি ঋষি বঙ্কিমচন্দ্র কলেজ বুধবারের গণ্ডগোলের ঘটনার পর বৃহস্পতিবার সকালে কলেজের সামনে মিছিল করেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি ত্রিনাঙ্কুর ভট্টাচার্য্য, তৃণমূল নেতা সুবোধ অধিকারী সহ অন্যান্য তৃণমূল নেতা ও ঋষি বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায় কলেজের ছাত্রছাত্রীরা।

আরও পড়ুন : চিদাম্বরমকে গ্রেফতার করছে অথচ তৃণমূলের দাগীদের দলে নিচ্ছে বিজেপি: সোমেন

তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি ত্রিনাঙ্কুর ভট্টাচার্য্যের বক্তব্য, “গতকাল যে ভাবে এবিভিপির বহিরাগত দুষ্কৃতীরা কলেজের সামনে এবং কলেজের ভেতরে তাণ্ডব চালিয়েছে, গুলি চালিয়েছে সেই ঘটনার প্রতিবাদ করতেই এদিন কলেজের সামনে এসেছি আমরা। ছাত্রছাত্রীরা শিক্ষার জন্য লড়াই করুক, কিন্তু সেখানে বহিরাগতরা থাকবে না। লড়াইটা হোক খাতা পেনের, লড়াইতে বোমা, গুলি কেন আসবে? বৃহস্পতিবার এবিভিপির দুষ্কৃতীরা গুলি চালিয়েছে কলেজ চত্বরে।”

অপরদিকে এবিভিপির জেলার যুগ্ম সম্পাদক শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায় জানান,” তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কাছে নৈহাটি কলেজের অধিকাংশ ছাত্রছাত্রীদের সমর্থন নেই। তাই তাঁরা বহিরাগত এনে শিক্ষাক্ষেত্রে অশান্তির পরিবেশ তৈরি করেছে। সেই মত তাঁরা গতকাল একই পদ্ধতিতে কলেজ দখল নেওয়ার চেষ্টা করে এবং গুলি চালায়। এই ঘটনার বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই চলছে এবং আমরা লড়াই চালিয়ে যাব। ওরা এবিভিপির ছাত্র ছাত্রীদের আন্দোলনের জন্য এখন কলেজে তোলাবাজি করতে পারছে না। সেই কারণে কলেজকে অশান্ত করছে।”

কলেজের বাইরে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ছিল পুলিশ পিকেট। তবে কলেজে অশান্তির ঘটনার জেরে বৃহস্পতিবার ছাত্রছাত্রীদের উপস্থিতির হার ছিল যথেষ্ট কম। যদিও বৃহস্পতিবার নতুন করে কোন অশান্তি সৃষ্টি হয়নি নৈহাটি ঋষি বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায় কলেজে৷