স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: কান্দি বিধানসভা উপনির্বাচনের আগে ফের হাত শক্ত করল কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর হাত ধরে শাসক দল থেকে কংগ্রেসে যোগদান করল প্রায় ৫০ জন কর্মী সমর্থক।

গত লোকসভা নির্বাচনের আগে কংগ্রেসে যোগদান চলছিল। লোকসভা নির্বাচন মিটতেই সেই যোগদানের পালা অব্যাহত থাকল মুর্শিদাবাদ জেলায়। আগামী ২০ মে কান্দি ও নওদা বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন। ঠিক তার প্রাক্কালে বৃহস্পতিবার দুপুরে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে কংগ্রেসে যোগদান করল প্রায় ৫০ জন যুব কর্মী সমর্থক। এদিন তারা বহরমপুরে জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে গিয়ে বিদায়ী সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরীর হাত ধরে কংগ্রেসে যোগদান করেন।

অধীর রঞ্জন চৌধুরী জানান, এই জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের আর কিছু থাকবে না৷ তাই লোকসভা নির্বাচনের পরেও তাদের ঘর ভাঙা অব্যাহত। মানুষ কংগ্রেসের পাশেই ছিল, আছে এবং থাকবে। মানুষ বুঝে গিয়েছে কংগ্রেস ছাড়া গতি নেই৷ তাই এখনও কংগ্রেসে যোগদান করছে মানুষ। এই যোগদান আগামী দিনেও কান্দি বিধানসভা উপনির্বাচনে বহিঃপ্রকাশ পাবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।