স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়াঃ করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই ‘দলবদল’ অব্যাহত বাঁকুড়ায়। শাসক শিবিরে বড় ধাক্কা। এবার ঘাস ফুল শিবির ছেড়ে পদ্মশিবিরে যোগ দিলেন ওন্দার রতনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ২২ টি পরিবার। বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা নেতৃত্বের তরফে দাবি করা হয়েছে রতনপুরের আমলাগোড়া গ্রামের প্রথম সারির তৃণমূল কর্মী মিনতি পাল ও পল্টু গায়েনের নেতৃত্বে ২২ টি পরিবার তাদের দলে যোগ দিয়েছেন।

তৃণমূল ছেড়ে আসা ওই সব কর্মীদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সাধারণ সম্পাদক অমরনাথ শাখা। পরে বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সাধারণ সম্পাদক অমরনাথ শাখা বলেন, মোদিজীর নেতৃত্বে যেভাবে সারা দেশ এগিয়ে চলেছে, সেই কর্মকাণ্ডে নিজেদের নিয়োজিত করতেই ওই কর্মীরা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন বলে তিনি দাবি করেন। যদিও এবিষয়ে জানতে তৃণমূল নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি। সেকারণেই তৃণমূলের কোন প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

বাঁকুড়া বিজেপির অন্যতম শক্ত ঘাঁটি। গত লোকসভা নির্বাচনে এই আসন থেকে ভালো ফল করে বিজেপি। পেয়েছে দুই সাংসদ। বাঁকুড়া লোকসভা থেকে সাংসদ সুভাষ সরকার। এবং বিষ্ণুপুর লোকসভা আসন থেকে বিজেপির সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

এখনও পর্যন্ত বিজেপির হাতে থাকা দুটি লোকসভা আসনে তৃণমূলে দাঁত ফোটাতে পারেনি। যদিও গত কয়েকদিন আগে স্থানীয় বিজেপিতে বড়সড় ভাঙন ধরাতে সক্ষম হয় তৃণমূল। এবার পালটা দিল বিজেপি। শাসকদল তৃণমূলের বেশ কয়েকজন প্রথম সারির নেতা-নেত্রীকে ছিনিয়ে নিল মোদীর দল।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প