স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিজেপির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে আজ, সোমবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার পাঁচটি থানার দ্বারস্থ হবে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। বাগদা, বনগাঁ, গাইঘাটা, হাবড়া ও দেগঙ্গা থানায় গিয়ে স্মারকলিপি দেবে তারা৷ একথা জানিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷

জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, বিজেপির লোকজন আমাদের কর্মীদের উপর হামলা করছে। বাড়ি ভাঙচুর হচ্ছে এবং পার্টি অফিস দখল করছে। তাই আমাদের দলীয় নেতৃত্ব, বিধায়ক, যুব নেতৃত্ব সকলে মিলে সোমবার বাগদা, বনগাঁ, গাইঘাটা, হাবড়া ও দেগঙ্গা থানায় গিয়ে ডেপুটেশন দেবে।

আরও পড়ুন: আজ সকাল ১০টায় রাজীব কুমারকে তলব সিবিআইয়ের

উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বলেন, বনগাঁ ও হাবড়ায় আমাদের দু’টি পার্টি অফিস বিজেপির লোকজন দখল করেছিল। আমরা পুনুরুদ্ধার করেছি। বারাকপুরে অনেকগুলি অফিস দখল করে ওরা রং করে দিয়েছে। সেগুলিও আমরা পুনর্দখল করে নেব। আগামী মঙ্গলবার আমরা সকল জেলা নেতৃত্বকে নিয়ে একটি জরুরি বৈঠকও ডেকেছি। সেখানে আমাদের পরবর্তী পদক্ষেপ আলোচনা হবে।

উল্লেখ্য, শনিবার কালীঘাটে ভোট পরবর্তী রিভিউ মিটিং-এ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাফ জানিয়ে দিয়েছেন দলের পার্টি অফিসগুলোকে দখলমুক্ত করতে হবে৷ পরে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, বিজেপি আমাদের যেসব পার্টি অফিস দখল করে নিয়েছে, আমি সেগুলো সোমবারের মধ্যে উদ্ধার করার টার্গেট দিয়েছি৷

আরও পড়ুন: কিছুক্ষণের মধ্যেই ফল প্রকাশ উচ্চ মাধ্যমিকের, জানা যাবে অনলাইনে

নেত্রীর নির্দেশ পেয়েই জেলায় জেলায় পার্টি অফিস দখলে নেমে পড়েছেন তাঁর সৈনিকরা৷ ইতিমধ্যেই দলীয় কার্যালয় উদ্ধার করতে গিয়ে বিজেপির হামলার মুখে পড়েছেন জলপাইগুড়ি জেলার তৃণমূলের সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তী৷

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, মমতার এই ঘোষণার পর তৃণমূলের পার্টি অফিস পুনরুউদ্ধার ঘিরে আগামী কয়েকদিন রাজ্যে রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে পারে৷