কলকাতা: অত্যাচার করছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানেরা। সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের অন্তিম দিনে এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করা হল রাজ্যের শাসকদল তৃণমুল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে।

সর্বভারতীয় তৃণমূলের ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বিবৃতি দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছেন রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানেরা বিজেপির হয়ে কাজ করছে এবং বিজেপি প্রার্থীদের কথায় কাজ করছে।

ঘটনার সূত্রপাত মোদী সরকারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামণের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন যে ভোট মিটলেই তৃণমূল গুন্ডাবাহিনী হামলা চালাতে পারে। সেই কারণে নির্বাচন কমিশনের কাছে তিনি আবেদন করেছিলেন ভোট মিটে গেলেও যে বাংলার বিভিন্ন জায়গায় বাহিনী মোতায়েন করে রাখা হয়।

নির্মলা সীতারামণের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতেই বিবৃতি প্রকাশ করা হয় তৃণমূলের পক্ষ থেকে। নির্মলাদেবী বাংলার বাইরে দাঁড়িয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে মিথ্যাচার করেছেণ বলে অভিযোগ করা হয়েছে বিবৃতিতে।

ওই বিবৃতিতে লেখা হয়েছে যে রবিবার অত্নিম দফার ভোটের দিনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানেরা সাধারণ মানুষের উপরে মারাত্মক অত্যাচার চালাচ্ছে এবং মেরুকরণের চেষ্টা করছে। প্রতিবন্দ্বী ভোটাররাও সেই অত্যাচার থেকে রেহাই পায়নি। একই সঙ্গে জওয়ানেরা ভোটারদের হুমকি দিয়ে বলছে, “কমল দাবাও নেহি তো ঠোক দেগা।(পদ্ম ফুলের বোতাম না টিপলে মেরে ফেলা হবে।)”

একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের বিরুদ্ধে তৃণমূলের আরও অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপি দলের হয়ে এবং বিজেপি প্রার্থীদের নির্দেশ মেনে কাজ করছে। এই ধরণের ক্রিয়াকলাপ সম্পূর্ণভাবেই নির্বাচনী বিধিভঙ্গের সমান। এই বিষয়ে নির্বাচন কমিশন এখনও পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা নেয়নি।

এই ধরণের নানাবিধ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এবং আগামী অল্প কয়েকদিনের মধ্যে আরও ভিডিও সমগ্র দেশবাসি দেখতে পাবে বলে লেখা হয়েছে তৃণমূলের পেশ করা বিবৃতিতে। একই সঙ্গে আরও লেখা হয়েছে, “বাংলা শান্তিপূর্ণ ভোট চায়। বিজেপি চায় না।”