দেবময় ঘোষ, কলকাতা: “রাম কা নাম বদনাম না করো…।” ২০ জুলাই থেকে ২১ জুলাই, সারা কলকাতায় এই গানটিই বাজছে। ১৯৭১ সালে ‘হরে রাম হরে কৃষ্ণ’ ছবির এই গানটি সারা ভারতে ‘ব্লকবাস্টার’ হিট হয়েছিল। কিশোর কুমারের উদাত্ত কণ্ঠে দেব আনন্দের লিপে “দেখো ও দিয়ানো তুমি ইয়ে কম না কারো … রাম কা নাম বদনাম না কারো …” গানটি সত্তরের দশকে যুবক-যুবতীর মুখে মুখে ঘুরেছে। হঠাৎ ২০১৯ সালে এই গানটি তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে এত প্রাধান্য পেলো কেন?

তৃনমূল নেতারাই বলছেন কারণটা অবশ্যই রাজনৈতিক। ‘ভগবান শ্রী রামে’র নামে বিজেপির এই রাজনীতিকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ করতেই এই গানকে হাতিয়ার করতে হয়েছে।

দক্ষিণ কলকাতার এক তৃণমূল নেতার কোথায়, ওই গান আর বেশি করে বাজাতে হবে। রাম নিয়ে রাজনীতি নয়তো বন্ধ হবে না।

ওই নেতা আরও বলছেন, গানটা পুরোটা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে শোনাতে চাই। পরের লাইন গুলোও যথার্থ, রাম কো সমঝো, কৃষ্ণা কো জানো , নিন্দ সে জাগো, ও মাষ্টানো…। পুরোটা বিজেপি নেতাদের উদ্দেশ্যেই।

রাম নিয়ে রাজনীতি পশ্চিমবঙ্গে নতুন না হলেও পুরানো নয়। তৃণমূল নিজেও রাম রাজনীতিতে নেমে পড়েছে। বিজেপির সঙ্গে সমান তালে রাম নবমী পালন করছে। সেক্ষেত্রে গীতিকার আনন্দ বক্সীর লেখা এবং রাহুল দেব বর্মনের সুর করা যায় গান বঙ্গ রাজনীতিতে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে।