স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অসমে নৃশংসভাবে পাঁচ বাঙালিকে হত্যা৷ ধিক্কার জানাতে মহানগরের পথে নেমে প্রতিবাদ তৃণমূলের৷ হত্যার দায় নিয়ে অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়ালের পদত্যাগ দাবি করা হয় রাজ্যের শাসক দলের তরফেে৷ আলফা এই ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে৷ ডায়মণ্ডহারবারের সাংসদের প্রশ্ন, ‘‘সেনার পোশাকে কারা এসেছিল? তদন্ত হোক’’

দক্ষিণ কলকাতার ৮বি বাস স্ট্যান্ড থেকে হাজরা মোড় পর্যন্ত এদিন প্রতিবাদ মিছিলের নেতৃত্ব দেন যুব তৃণমূল সভাপতি বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত বক্সি, জেরেক ও’ব্রায়েনরা৷ প্রতিবাদ সভা থেকে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানানো হয় গেরুয়া শিবিরকে৷

অসমের হত্যালীলাকে এদিন নেতাইয়ের সঙ্গে তুলনা করেন যুব তৃণমূল সভাপতি৷ তিনি বলেন, ‘‘বাংলায় ৩৪ বছর ধরে যে গণহত্যা সিপিএম চালিয়েছে এখন তারই প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে৷’’

তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, দেশে বিভেদ তৈরির চেষ্টা করছে বিজেপি৷ অশান্তি ছড়িয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে ভোটে জিততে চায় কেন্দ্রের শাসক দল৷ ‘‘বাংলার ঐতিহ্য অন্য কথা বলে৷ তাই বৃস্পতিবারের ঘটনার প্রতিবাদে এদিন গর্জে উঠেছে গোটা রাজ্য৷’’ বিজেপিকে কটাক্ষ করে দাবি যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷

আরও পড়ুন: ‘সেনার পোশাকে এসেছিল পাঁচজন’! ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা জানালেন প্রত্যক্ষদর্শী

অসমে বাঙালি হত্যার প্রতিবাদে রাজ্যের বিজেপি নেতাদের এরাজ্যের মানুষের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে মনে করেন ডায়মণ্ডহারবারের সাংসদ৷ এই ঘটনার পর আগামী লোকসভায় কীভাবে গেরুয়া শিবিরের নেতারা এরাজ্যে ভোট চাইবেন তা নিয়েও প্রশ্ম তোলেন ডায়মণ্ডহারবারের সাংসদ৷

কোটি কোটি টাকা খরচ করে সর্দার সরোবরে বল্লভভাই প্যাটেলের মূর্তি গড়া হয়েছে৷ বুধবার প্রধানমন্ত্রী তার উদ্বোধন করেন৷ সেই মূর্তি নিয়ে সমালোচনায় মুখর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি বলেন, ‘‘যে দোসে মানুষ থেকে পায় না সেখানে এত টাকা দিয়ে মূর্তি তৈরি করে কী বার্তা দিতে চায় কেন্দ্র?’’

আরও পড়ুন: তিনসুকিয়ার ঘটনায় ভয়ে কাঁপছে শোণিতপুর, কোকরাঝাড়

এনআরসি নিয়ে প্রথম থেকেই প্রতিবাদে মুখর তৃণমূল৷ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তালিকা থেকে নাম বাদ গিয়েছে বাঙালিদের৷ অভিযোগ রাজ্যের শাসক শিবিরের৷ এরই মাঝে বৃহস্পতিবারের বাঙালি হত্যার ঘটনা৷ আন্দোলনের ঝাঁঝ তীব্রতর করতে মরিয়া তৃণমূল৷ এনআরসিকে বাঙালি আবেগের সঙ্গে যুক্ত করে রাজধানীর মসনদ থেকে মোদী হঠাতে উদ্যোগী রাজ্যের সাসক শিবির