তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: লোকসভা ভোটে বাঁকুড়ায় জেলায় শাসক দলের ব্যাপক ভরাডুবির পর ফের নতুন করে পার্টি অফিস খুলল তৃণমূল। মঙ্গলবার বাঁকুড়ার ওন্দার রতনপুরে নতুন পার্টি অফিসের উদ্বোধন করেন দলের বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি ও রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। তার আগে তিনি নবনির্মিত দলীয় কার্যালয়ের সামনে একসভায় বক্তব্যও রাখেন।

ওই পার্টি অফিস বন্ধ হয়ে যাওয়ার জন্য বিজেপিকেই দায়ী করেন মন্ত্রী। বলেন, ‘বিজেপি হার্মাদদের সন্ত্রাসের কারণে’ ভাড়া বাড়িতে চলা এই পার্টি অফিস বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। মানুষকে সঙ্গে নিয়ে ফের নতুন করে অফিস খোলা হলো। বিজেপিকে ‘নন্দী ভৃঙ্গি, ভূত প্রেতের দল’ বলে দাবি করে তিনি বলেন, এই দলের নেতারা সব সময় গোরুর দুধ থেকে সোনা, গোরু অক্সিজেন সরবরাহ করার মত অবৈজ্ঞানিক কথাবার্তা বলেন। তাদের কাছ থেকে মানুষ এর থেকে বেশি কিছু আশা করতে পারে না।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে জেলার দুই লোকসভা কেন্দ্র বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর তৃণমূলের হাত থেকে ছিনিয়ে নেয় বিজেপি। তারপর থেকেই বিষ্ণুপুর এলাকায় বেশ কিছু তৃণমূলের দখলে থাকা গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির হাতে চলে যায়। লোকসভা ভোটে বিজেপির সাফল্যকে কাজে লাগিয়ে ২০১১ পরবর্তী সময়ে বন্ধ হয়ে যাওয়া সিপিএম তথা বামেদের পার্টি অফিস গুলি যখন একের পর এক খুলতে শুরু করে, ঠিক তখনই রাজ্যে ক্ষমতায় থাকা সত্বেও তৃণমূলের পার্টি অফিস গুলি বন্ধ হতে শুরু করে।

এক্ষেত্রে তৃণমূল নেতৃত্ব ‘বিজেপির সন্ত্রাস’কেই দায়ী করেছিলেন। সম্প্রতি রাজ্যের তিন বিধানসভা উপনির্বাচনে দলের বিপুল সাফল্যে উচ্ছ্বসিত শাসক শিবির। তিন মাস আগে বন্ধ হয়ে যাওয়া দলের অফিস গুলি ফের খোলার উদ্যোগ নেন এই জেলার তৃণমূল নেতৃত্ববৃন্দ।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা