স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিধানসভা নির্বাচনের আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজেপির বিরুদ্ধে নয়া প্রচার শুরু করল তৃণমূল কংগ্রেস। ওই কর্মসূচির নাম দেওয়া হয়েছে ‘মার্ক ইওরসেল্ফ সেফ ফ্রম বিজেপি’। অর্থাৎ, নিজেকে বিজেপি-র থেকে সুরক্ষিত বলে চিহ্নিত করুন।

করোনাকালে তৃণমূলের প্রচার-প্রকল্প সাময়িক থেমে গিয়েছিল ঠিকই। হাথরস ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে বিজেপি অতিমারী বলে স্লোগান তুলেছিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । তাঁর সেই স্লোগানকে সামনে রেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় নতুন ক্যাম্পেন শুরু করল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস।এই প্রচারের জন্য savebengalfrombjp.com নামে একটি ওয়েবসাইটও খোলা হয়েছে।

ওই ওয়েবসাইটের পাশাপাশি ফেসবুকের মাধ্যমেও নিজেকে ‘সেফ’ চিহ্নিত করার সুযোগ রয়েছে। এই নয়া স্লোগানের প্রচার ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে ‘বাংলার গর্ব মমতা’, ‘দিদিকে বলো’ ইত্যাদি পেজে।

সেখানে লেখা হয়েছে, “বই পড়ার বয়সে বাচ্চাদের হাতে তরওয়াল ও বন্দুক তুলে দেওয়া হচ্ছে। ধর্ম ও বর্ণের ভিত্তিতে মানুষকে আক্রমণ করা হচ্ছে। আমাদের এই বিভেদের রাজনীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো উচিত। নিজেকে বিজেপির থেকে সুরক্ষিত চিহ্নিত করতে http://savebengalfrombjp.com এ ক্লিক করুন।”

উল্লেখ্য, বছর ঘুরলেই বিধানসভা ভোট। তার দামামা ইতিমধ্যে বেজে গিয়েছে। বিজেপি বা তৃণমূল উভয়েই নানা কর্মসূচি নিচ্ছে। দু-পক্ষই শান দিচ্ছে অস্ত্রে। সর্বদাই একে-অপরকে টেক্কা দেওয়ার খেলা চলছে।

নিত্যনতুন কৌশল রচনা করে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রাখার লড়াইও চলছে জোরদার।প্রশান্ত কিশোরের পরিকল্পনায় তৃণমূল সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নতুন ক্যাম্পেন শুরু করেছে।

তবে, জোড়া-ফুল শিবিরের নতুন এই প্রচার অভিযান ঘিরেও রাজনৈতিক তরজা বেঁধেছে। তৃণমূলকে কটাক্ষ করে এক শীর্ষ বিজেপি নেতা বলেছেন, ‘মানুষ এখন মমতা সরকারের থেকে নিস্তার চাইছে।

তাই এই প্রচারে কিছু লাভ হবে না। প্রচারে যতই অভিনবত্ব আনুন না কেন একুশ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর মুখ্যমন্ত্রী হতে পারবেন না।’

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।