হাওড়া: বৃহস্পতিবার সাতসকালে বালির ঘোষপাড়ায় পরিযায়ী পাখির ছবি তুলতে নিজেই হাজির হয়ে যান বাগনানের তৃণমূল বিধায়ক অরুণাভ সেন (রাজা )। এবার আর রাজনীতির ক্ষেত্র হিসেবে নয় এদিন বিধায়ক এসেছিলেন পক্ষীপ্রেমী হিসাবে।

সকাল সকাল প্রফেশনাল ক্যামেরাম্যানের মতো লেন্স হাতে করে রেললাইনের পথ হেঁটে বালি ঘোষপাড়া ঝিলে পৌঁছে ক্যামেরা স্ট্যান্ড নিয়ে বিধায়ক নিজেই নেমে পড়েন ছবি তুলতে। আমেরিকান উড ডাক নামের এই বিদেশি পাখিটিকে বালির ঘোষপাড়ার বাগপুকুরে গত কয়েক দিন ধরে দেখা যাচ্ছে। হাজার হাজার মানুষ, পক্ষীপ্রেমী থেকে শুরু করে ফটোগ্রাফাররা সেখানে এসে সকাল থেকে এসে ছবি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়ছেন। একইভাবে এদিন বাগনানের বিধায়ক অরুণাভ সেন ক্যামেরা হাতে পাখির ছবি তুললেন।

বিধায়ক বলেন, সংবাদমাধ্যমেই জানতে পারি নর্থ আমেরিকান উড ডাক এই পাখিটির কথা। আমার ছোট থেকেই ছবি তোলার নেশা। ওয়াইল্ড ফোটোগ্রাফি হলে তো কথাই নেই। দেশের বিভিন্ন জায়গায় ফোটোগ্রাফি করতেও যাই। সেই নেশাতেই পাখির ছবি তুলতে এখানে আসা। আমি এখানকার বন্ধুবান্ধবদের বলেছিলাম আজ সকালে বালিতে আসব। সেইমতো এসেছি। বেশ কয়েকটি ছবি লেন্সবন্দি করেছি।

উল্লেখ্য, সাধারণত এসময় পরিযায়ী পাখিদের দেখা মেলে না। কিন্তু ব্যতিক্রমও তো ঘটে। সেরকমটাই হয়েছে হাওড়াতে। তবে এক পক্ষীপ্রেমীর অনুমান, লুকিয়ে কেউ বাড়িতে পুষছিল পাখিটিকে। কোনওকারণে তাঁরা ছেড়ে দিয়েছে, অথবা পালিয়েছে। কারণ এই পাখি কখনও একা আসে না।

আপাতত জানা গিয়েছে, স্থানীয় বাসিন্দারা নিজে থেকেই পাখিটির উপরে নজর রাখা শুরু করেছেন। রাতেও তাঁরা পাখিটির দিকে নজর রাখছেন যাতে তার কোনও ক্ষতি না হয়, মানুষ তো বটেই, অন্য কোনও প্রাণীও যাতে তার ক্ষতি না করতে পারে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।