কলকাতা: রাত পোহালেই দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিতে চলেছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর সঙ্গে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন ৪৩ জন জয়ী তৃণমূল প্রার্থী৷ যাঁদের মধ্যে ১৮টি নতুন মুখ৷ রাজভবনে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর হাতে মন্ত্রীদের তালিকা দিয়ে বেরিয়ে এসে তৃণমূল নেত্রীর সাংবাদিকদের যা বলেছেন, তার মধ্যে একটি কথা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ ছিল: ‘‘সবাইকে মন্ত্রী করা সম্ভবপর নয়৷ যাদের মন্ত্রী করা গেল না তাদের দলের কাজে লাগানো হবে৷’’ এবার দেখে নেওয়া যাক তৃণমূলের নজন বিজয়ী প্রার্থীর নাম, যাঁরা গতবার মমতার মন্ত্রিসভায় ছিলেন, অথচ এবার আর নবান্নে ঘর পেলেন না৷
১) রচপাল সিং: এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তারকেশ্বর থেকে জয়ী৷ গত মন্ত্রিসভায় পরিকল্পনা, পরিসংখ্যান ও কর্মসূচি দফতর এবং কিছু দিনের জন্য পর্যটন সামলেছিলেন তিনি৷
২) রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য: মাস্টারমশাই এবারেও সিঙ্গুর থেকেই জয়ী হয়েছেন৷ গত মন্ত্রিসভায় প্রথম দিকে ছিলেন স্কুলশিক্ষা মন্ত্রী৷
৩) বেচারাম মান্না: হুগলির হরিপাল থেকে জয়ী৷ গত মন্ত্রিসভায় ছিলেন কৃষি, ভূমি ও ভূমি সংস্কার মন্ত্রী৷
৪) রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়: বর্ধমান দক্ষিণ কেন্দ্রে তৃণমূলের বিজয়ী প্রার্থী৷ কারিগরি শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, জৈবপ্রযুক্তি মন্ত্রী ছিলেন৷
৫) পুণ্ডরীকাক্ষ সাহা: নবদ্বীপের জয়ী প্রার্থী৷ গত মন্ত্রিসভায় জনস্বাস্থ্য ও প্রকৌশল দফতর সামলেছেন৷
৬) জ্যোতির্ময় কর: পটাশপুরের জয়ী তৃণমূল প্রার্থী৷ খাদ্য ও সরবরাহ দফতরের দায়িত্বে ছিলেন৷
৭) হায়দার আজিজ সফি: উলুবেড়িয়া পূর্ব কেন্দ্র থেকে জয়ী তৃণমূল প্রার্থী৷ গত মন্ত্রিসভায় ফৌজদারি প্রশাসন দফতরে ছিলেন৷
৮) সুদর্শন ঘোষ দস্তিদার: মহিষাদল থেকে জয়ী৷ ১ টাকার ডাক্তার৷ ছিলেন পরিবেশমন্ত্রী৷
৯) সুকুমার হাঁসদা: ঝাড়গ্রাম কেন্দ্রের বিজয়ী প্রার্থী৷ পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী ছিলেন৷