নয়াদিল্লিঃ  আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিলেন মমতার প্রিয় পাত্র শোভন চট্টোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গেই বিজেপিতে যোগ দিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার দুপুরে দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে পৌঁছে যান বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়। আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগদানের আগে বিজেপির কার্যকরী সভাপতি জে পি নাড্ডার সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন শোভন-বৈশাখী।

ওই বৈঠকে তাঁদেরকে উত্তরীয় পরিয়ে বিজেপিতে স্বাগত জানান জে পি নাড্ডা। আগামিদিনে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনে নবান্ন দখল করার লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্যেও শোভন-বৈশাখীকে নির্দেশ দেন বিজেপির এই কার্যকরী সভাপতি। এমনটাই বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে।

জে পি নাড্ডার সঙ্গে বৈঠক শেষে রাজ্যের অন্যতম দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতা অরবিন্দ মেননের ঘরে যান তাঁরা। সেখানে ছিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন চাণক্য মুকুল রায়। শোভন ঘরে ঢুকতেই তাঁকে জড়িয়ে ধরেন মুকুল। একই সঙ্গে আগামিদিনে লড়াইয়ে নামার বার্তাও মুকুল রায় শোভনকে দেয় বলে সূত্রে জানা গিয়েছে। এরপরেই বিজেপির সদর দফতরে মূল পোডিয়ামে হাজির হন শোভন চট্টোপাধ্যায়, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে ছিলেন মুকুল রায়। সেখানেই তাঁরা আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দেন।

যোগদান শেষে মুকুল রায় জানিয়েছেন, শোভন চট্টোপাধ্যায় কলকাতার মহানাগরিক ছিলেন। আগামিদিনে বিধানসভা নির্বাচনে মমতার পার্টি বিরোধী দলের মর্যাদাও হারাবে। শুধু তাই নয়, আগামীদিনে কলকাতা পুরসভাতেও জয় পাবে বিজেপি। একই সঙ্গে মুকুল রায় আরও জানান, শোভনের সঙ্গেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন বৈশাখী। তাঁর যোগদান আগামীদিনে বাংলায় বিজেপির শক্তি আরও বাড়বে। তিনি আরও জানিয়েছেন, যেভাবে মোদী গোটা দেশে উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ চালাচ্ছে তা দেখেই বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত নেন শোভন।