তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: রাজ্য জুড়ে ‘কাটমানি’ বিতর্কের মাঝে একেবারে অন্য ছবি ধরা পড়লো বাঁকুড়ায়। সাধারণ মানুষের চাপে রবিবার সকাল থেকে এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা ও বাঁকুড়া-২ পঞ্চায়েত সমিতির প্রাক্তন সদস্য অরুণ গরাই নিজে কেশিয়াকোল গ্রামে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ‘কাটমানি’র টাকা ফেরৎ দিচ্ছেন। এই ঘটনার ফলে বিরোধীদের কাটমানি অভিযোগে শিলমোহর পড়ায় অস্বস্তিতে শাসক শিবির।

সরকারি প্রকল্পে বাড়ি, শৌচাগার তৈরী থেকে বৃদ্ধভাতা সবেতেই এই তৃণমূল নেতা ‘কাটমানি’ খেয়েছেন বলে অভিযোগ ছিল। লোকসভা ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকে বিরোধী রাজনৈতিক দল গুলির পাশাপাশি মানুষের চাপ বাড়ছিল। এই পরিস্থিতিতে এক প্রকার বাধ্য হয়েই ঐ তৃণমূল নেতা টাকা ফেরৎ দিতে বাধ্য হচ্ছেন বলে অনেকে মনে করছেন।

মহেশ্বর দাস মোদক তার বাবার নামে আসা বাড়ির পাঁচ হাজার টাকা এদিন ফেরৎ পেলেন। এরকম এই গ্রামের বেশ কয়েক জনকে ঐ তৃণমূল নেতা টাকা ফেরৎ দিতে বাধ্য হলেন। প্রত্যেকেই খুশি এই ঘটনায়।

অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা নিজেও ‘কাটমানি’ নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, গ্রামের সবার মতামতের ভিত্তিতেই ঐ টাকা ফেরৎ দিচ্ছি।