মেদিনীপুরঃ  অপ্রত্যাশিতভাবেই বাংলায় বিজেপির উত্থান। ফলপ্রকাশের পর থেকেই ক্রমশ বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক বাড়ছে। তেমনই আজ শনিবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করলেন বহু নেতা-কর্মী। পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতা চন্দ্রকোনা রোডে দলবদল করলেন প্রায় ২০০ জন তৃণমূল নেতা-কর্মী। যা কিনা অবশ্যই বড় ধাক্কা শাসকদল তৃণমূলের কাছে। যদিও তা মানতে নারাজ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তাঁদের দাবি, দল থেকে বিচ্ছিন্ন থাকা কর্মীরাই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছে।

তবে তৃণমূলের মারাত্মক অভিযোগ, ফলপ্রকাশের পরেই তৃণমূল কর্মীদের ভয় দেখানো হচ্ছে। কার্যত ভয় দেখিয়ে জেলাজুড়ে নেতা-কর্মীদের দলবদল করানো হচ্ছে বলে মারাত্মক অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূলের। যদিও তৃণমূলের এহেন দাবি সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁদের পালটা দাবি, যেভাবে মানুষ তৃণমূলের কার্যকলাপ দেখেছে তাতে ক্ষুব্ধ। আর সেই কারণেই গোটা বাংলার মানুষ বিজেপিকে ভোট দিয়েছে।

শুধু তাই নয়, মোদী সবকা সাথ-সবকা বিকাশ যে স্লোগান তুলেছেন তাতে ভরসা রাখছে। আর সেই কারণেই তৃণমূল ছেড়ে ক্রমশ বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক বাড়ছে বলে দাবি নেতৃত্বের। আগামিদিনে আরও মানুষ তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবে বলেও দাবি স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের।

উল্লেখ্য, গড়বেতা-কেশপুর একটা সময় সিপিএমের শক্ত ঘাঁটি ছিল। সিপিএমে সন্ত্রাসে সেখানে মানুষ অতিষ্ট হয়ে ওঠে। কিন্তু ক্ষমতার পালাবদলের পর কেশপুর-গড়বেতা অনেকটাই শান্ত। যদিও যত দিন এগিয়েছে ধীরে ধীরে সেখানকার মানুষের ক্ষোভ জন্মেচ্ছে শাসকদলের উপর। একাধিক ইস্যুতে শাসকদলের উপর ক্ষুব্ধ সেখানকার মানুষ। যার ফল লোকসভার ভোট বাক্সে।