তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: শাসক দলের পার্টি অফিস ভাঙ্গচুর ও অঞ্চল সভাপতিকে মারধোরের অভিযোগ উঠলো বিজেপির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার তালডাংরা থানার বিবড়দা গ্রামে।

সূত্রের খবর, বিবড়দা গ্রামে খালগ্রাম অঞ্চল তৃণমূল পার্টি অফিসে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা অতর্কিতে আক্রমণ চালায়। ঐ সময় দুষ্কৃতী দলটি পার্টি অফিসে বসে থাকা দলের অঞ্চল সভাপতি তাপস তুঙ্গ সহ বেশ কয়েকজনকে আক্রমণ করে। বিজেপি কর্মীরা পার্টি অফিস ভাঙ্গচুরের পাশাপাশি তাপস তুঙ্গের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে খুনের হুমকি দেয় বলে অভিযোগ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় তালডাংরা থানার পুলিশ। পুলিশ আহত তাপস তুঙ্গকে উদ্ধার করে তালডাংরা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়। পুলিশ এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে চার বিজেপি কর্মীকে রাতেই গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার পুলিশ ধৃতদের খাতড়া মহকুমা আদালতে তুলছে।

হাসপাতালে ভর্তি খালগ্রাম অঞ্চল তৃণমূল সভাপতি তাপস তুঙ্গ বলেন, পার্টি অফিসে বসে থাকার সময় অতর্কিতে বিজেপি কর্মীরা হামলা চালায়। এই ঘটনায় আরও এক দলীয় কর্মী আহত বলে তিনি দাবি করেন।

তালডাংরা ব্লক যুব তৃণমূল সাধারণ সম্পাদক সৌমেন সামুই এর দাবি, বোমা বন্দুক নিয়ে বিজেপি কর্মীরা তাদের খালগ্রাম পার্টি অফিসে হামলা চালিয়েছিল। ওই ঘটনায় তার বাবা সত্যনারায়ণ সামুই ও দলের অঞ্চল সভাপতি তাপস তুঙ্গ আক্রান্ত বলে তিনি দাবি করেন।

বিজেপির পক্ষ থেকে তৃণমূলের অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করা হয়েছে। বিজেপি নেতা সোমনাথ চৌধুরী বলেন, সম্পূর্ণ ঘটনার পিছনে তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দই দায়ি। তাদের দলের কেউ যুক্ত নয় বলেই তাদের দাবি।