প্রতীকী ছবি৷

নিউজ ডেস্ক: বিজেপিকে ভোট দেওয়ায় দলবল নিয়ে গ্রামবাসীদের চমকাতে গিয়েছিলেন এক তৃণমূল নেতা৷ পাল্টা গ্রামবাসীদের হাতে মার খেয়ে এখন তিনি হাসপাতালের বিছানায়৷

রাজ্যে বিজেপির আশাতীত ভোটবৃদ্ধির পর মাথায় হাত তৃণমূল নেতাদের৷ ভোটের ফল পর্যালোচনার পর, তৃণমূল কংগ্রেসে থেকে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার তত্ত্ব উঠে আসে৷ দক্ষিণ ২৪ পরগণার সন্দেশখালির গোলাবাড়ি গ্রামেও বেশ কিছু লোকজনের বিরুদ্ধে পদ্মফুলে ভোট দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন ঘাসফুল শিবিরের নেতারা৷ তাদের শায়েস্তা করতে শনিবার রাতে দলবল নিয়ে গ্রামে ঢোকেন স্থানীয় পঞ্চায়েত উপপ্রধান সত্যজ্যোতি সান্যাল৷

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, স্থানীয় তৃণমূল নেতার নেতৃত্বে বাইকবাহিনী গ্রামে ঢুকে সবাইকে শাসাতে থাকে৷ কয়েকজনের বাড়িতে ভাঙচুর করা হয়৷ এমনকি বিজেপিকে ভোট দেওয়ার অভিযোগে কয়েকজনকে মারাও হয়৷ তৃণমূলের দাদাগিরি দেখে ফুঁসতে থাকেন গ্রামবাসীরা৷ তারা রুখে দাঁড়ান৷ তৃণমূল বাহিনী আগেয়াস্ত্র বের করে ভয় দেখাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন গ্রামবাসীরা৷ সকলে মিলে ওই তৃণমূল নেতা ও বাইক বাহিনীকে গণধোলাই দেয়৷

গ্রামবাসীদের হাতে মার খেয়ে কোনরকমে সেখান থেকে পালান পঞ্চায়েত উপপ্রধান সত্যজ্যোতি সান্যাল৷ পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করতে হয়৷ সেখানেই এখন তাঁর চিকিৎসা চলছে৷