মালদহ: মালদার গঙ্গাপ্রসাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে এনআরইজিএস প্রকল্প লক্ষাধিক টাকার দুর্নীতির অভিযোগ। আর সেই অভিযোগ ব্লক অফিসে করায়, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো অভিযোগকারীদের চিঠি দিয়ে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল কালিয়াচক ২নম্বর ব্লকের বিডিওর বিরুদ্ধে। অভিযোগকারীরা এবার জেলাশাসক ও মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন।

মালদার কালিয়াচক ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত গঙ্গাপ্রসাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘটনা। এন আর ই জি এস প্রকল্পে কয়েক লক্ষ টাকা দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে এই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তথা এলাকার তৃণমূল নেতা আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ প্রকল্পের টাকা নিয়ে তছনছ করেছে প্রধান। ভুয়ো নাম দিয়ে টাকা তোলা হয়েছে।

কালিয়াচক ২ নম্বর ব্লকের বিডিওর কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছিল। কিন্তু সঠিক তদন্ত না করে উল্টে বিডিও তাদের চিঠি দিয়ে হুমকি দিয়েছে এ ধরনের অভিযোগ যদি তারা করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গ্রামবাসীদের দাবি এই দুর্নীতির সাথে ক্ষোদ বিডিও জড়িয়ে পড়েছে।

গোটা ঘটনা নিয়ে গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান আমিনুল ইসলাম বলেন প্রশাসন তদন্ত করছে দুর্নীতির অভিযোগ ভিত্তিহীন। কালিয়াচক ২ নম্বর ব্লকের বিডিও সঞ্জয় ঘিসিংয়ের কাছে গেলে তিনি কার্যত হাতজোড় করে সংবাদমাধ্যমের কাছ থেকে পালিয়ে বাঁচেন।

এই ঘটনা নিয়ে সরব হয়েছে বিজেপি। বিজেপির মালদা জেলার সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত চ্যাটার্জী বলেন মানুষ প্রতারিত হয় প্রশাসনের কাছে যাবে। আর সেই প্রশাসন যদি মানুষকে মানুষ নাভাবে তাহলে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে। কোন বিডিও এ ধরনের চিঠি দিতে পারে না। তৃণমূলের মালদা জেলার কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার বলেন এ ধরনের অভিযোগ হলে প্রশাসন যা ব্যবস্থা নেওয়ার নেবে। এই ধরনের ঘটনা বর্দ্বাস্ত হবে না।