তমলুক: রাজ্যের বিভিন্ন পুরসভার পাশাপাশি পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক, এগরা এবং কাঁথি পুরসভাতেও এবছর ভোট হবে৷ আসন্ন পুরভোটকে কেন্দ্র করে পূর্ব মেদিনীরপুরে রাজনৈতিক তপরতা তুঙ্গে৷ শুরু হয়ে গিয়েছে দেওয়াল ‘দখল’৷ নেতা-কর্মীদের নিয়ে ছোট-ছোট কর্মী বৈঠক শুরু করে দিয়েছে ডান-বাম ও গেরুয়া শিবির৷

তমলুক, এগরা ও কাঁথি পুরসভার আসন পুনর্বিন্যাসের চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশ হয়েছে। তিন পুরসভাতেই সংরক্ষণের জেরে বেশ কিছু ওয়ার্ডের প্রার্থী বদলানো হবে৷ জয়ী প্রার্থীদের অন্য ওয়ার্ড থেকেও দাঁড় করানোর চেষ্টা হবে৷ খসড়া তালিকা প্রকাশের পর নির্বাচনী তপরতা সব শিবিরে৷ তমলুক-সহ কাঁথি এবং এগরায় ইতিমধ্যে সব রাজনৈতিক দল দেওয়াল সংরক্ষণের কাজ শুরু করে দিয়েছে৷

মঙ্গলবার তিন পুরসভার আসন সংরক্ষণের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেন জেলার পুর নির্বাচনী আধিকারিক তথা পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পার্থ ঘোষ। তমলুকে জেলাশাসকের ইলেকশন সেলের নোটিশ বোর্ডে তিন পুরসভার আসন সংরক্ষণের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়। প্রথম থেকেই আসন সংরক্ষণের খসড়া তালিকা নিয়ে আপত্তি ছিল বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের। এরপর সমস্ত রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠকের পর তাদের বক্তব্য শোনার পর মঙ্গলবার এই চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়।

আগের খসড়া তালিকা এবং বর্তমানে প্রকাশিত চূড়ান্ত খসড়া তালিকায় মিল রয়েছে। তবে তিন পুরসভার বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডের অদল-বদল হওয়ায় ফাঁপড়ে পড়েছেন বেশ কিছু রাজনৈতিক দলের নেতারা। এগরা পুরসভার ১৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৬টি সংরক্ষিত তালিকায় রয়েছে। যার মধ্যে ৬ নম্বর ওয়ার্ড তপশিলি মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। পাঁচটি ওয়ার্ড মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। যার ফলে এই সংরক্ষণের জেরে ফাঁপড়ে পড়েছেন ১০ নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত কাউন্সিলর শঙ্কর বেরা।

অন্যদিকে তমলুক পুরসভার ২০টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ড এবার সংরক্ষিত। ১৫ নম্বর ওয়ার্ড তপশিলি প্রার্থীর জন্য সংরক্ষিত রয়েছে। এখানেও সংরক্ষণের জেরে ফাঁপড়ে পড়েছেন ১৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান দীপেন্দ্রনারায়ণ রায়-সহ বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা৷ কাঁথি পুরসভার ২১টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ড এবার সংরক্ষিত। মহিলা সংরক্ষিত ৭টি ওয়ার্ড।

নির্বাচনী খসড়া তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর এখন তালিকার কোপেই পড়েছেন অনেক নেতা। জেলার তিনটি পুরসভা তৃণমূলের দখলে থাকলেও এগরা পুরসভায় শাসকদলের চিন্তার বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। কারণ তমলুক ও কাঁথি পুরসভা বিরোধী শূন্য হলেও এগরা পুরসভায় বিজেপির শক্তি উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে৷ তাই এগরা এখন মাথাব্যথার কারণ জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের কাছে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ