হাওড়া: মহামারী করোনার প্রকোপে আতঙ্কিত রাজ্যবাসী। দিন দিন রাজ্যে লাফিয়ে-লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। পাল্লা দিয়ে ছড়াচ্ছে সংক্রমণও। তারই মধ্যে রবিবার উলুবেড়িয়ার উদয়নারায়ণপুরে দূরত্ববিধি শিকেয় তুলে হয় তৃণমূলের যোগদান কর্মসূচি। তৃণমূলের যোগদান কর্মসূচি ঘিরে একই ছবি সামনে এসেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিং বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকা থেকে।

করোনা আবহে এদিন সকালে দূরত্ববিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে চলে তৃণমূলের কর্মসূচি। জলপাইগুড়িতে তৃণমূলের বিশ্ব আদিবাসী দিবসের অনুষ্ঠান ঘিরেও উঠে এল একই ছবি। রবিবার রাজগঞ্জ ব্লকের শিকারপুরে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সেখানেই করোনা সংক্রমণ রুখতে বিধিনিষেধ শিকেয় তুলে বহু মানুষের একত্রিত হওয়ার ছবি উঠে আসে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ক্রমেই উদ্বেগ বাড়ছে রাজ্যে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় হিমশিম খেতে হচ্ছে রাজ্য সরকারকে। তাই স্বাভাবিকভাবেই এমন কর্মসূচি নিয়ে শাসকদলের দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা।

২১ জুলাই একই কান্ড হয়। তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর থেকেই প্রতিবছরই এই দিন ধর্মতলায় সারম্বরে পালিত করে থাকেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জী। তবে এবছর করোনার কারণে আর ধর্মতলার মঞ্চ থেকে বক্তৃতা দিতে পারেননি তিনি।

এবছর কালীঘাট থেকে ভার্চুয়াল সভার মাধ্যমে রাজ্যবাসীর সামনে নিজের মন্তব্য প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। সেখানে যুবনেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য এক সভা করেন সেখানে ১৫ হাজার মানুষের জমায়েত হয়। এই ঘটনার পর নিজে ক্ষমা চান এই যুববেতা। তিনি বলেন , তাঁর অজানা ছিল এমন হতে পারে। মিটিংয়ে এসে এমন ভিড় দেখে তিনি অবাক হয়ে যান। সভা দ্রুত শেষ করে , নিজের বক্তব্যকে একদম সংক্ষেপে বলে দিয়ে বেরিয়ে যান।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা