স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী কোন্দলে চলল গুলি। একই সঙ্গে চালানো হল ধারাল অস্ত্রের কোপ। আর এই ঘটনাতেই প্রাণ হারালেন দুই ব্যক্তি। সেই সঙ্গে জখম হয়েছেন আরও একজন।

 

সোমবার রাতের দিকে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাটের গঙ্গারামপুর থানা এলাকায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, টেন্ডার এবং কাজের বখরা নিয়ে রাজ্যের শাসকদলের কর্মীরা নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। আর এই বিবাদের পরস্পর পরস্পরকে গুলি করে। একই সঙ্গে ধারাল অস্ত্র দিয়েও কোপান হয়।

 

সোমবার রাত ৯ টা নাগাদ গঙ্গারামপুর থানার ঠ্যাঙাপাড়া এলাকার ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। হামলার শিকার তিনজনকেই গঙ্গারামপুর সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় চিকিৎসার জন্য। সেখানে দুই ব্যক্তিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। যদিও অপরজন এখনও জীবিত। তবে ওই তৃতীয় ব্যক্তির অবস্থা ভালো নয় বলে জানা গিয়েছে হাসপাতাল সূত্রে।

 

মৃত দুই ব্যক্তির নাম পরিতোষ ভৌমিক এবং সৈদুর রহমান। এরা যথাক্রমে ৪৮ এবং ৪৬ বছর বয়সী। প্রথমজন গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছে এবং দ্বিতীয়জনের মাথায় ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপ দেওয়ার কারণে মারা গিয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। অন্যদিকে তৃতীয় ব্যক্তির পায়ে এবং পিঠে গুলি লেগেছে। সে ওই গঙ্গারামপুর সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন। জখম ওই ব্যক্তির নাম সঞ্জয় সরকার।

 

খুব স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনা ঘিরে ব্যপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে সমগ্র এলাকায়। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌছায় গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ। পরিস্থিতি সামাল দিতে নামানো হয়েছে ‌র‌্যফও। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, টেন্ডার ও কাজের বখরা নিয়ে কাজিয়ার জেরেই তৃণমূলের লোকেরা নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। কারা গুলি চালিয়েছে বা ঘটনায় আর কে কে জড়িত রয়েছে সেই বিষয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

জেলা পুলিশ সুপার নগেন্দ্র নাথ ত্রিপাঠি জানিয়েছেন যে ঠ্যাঙাপাড়া এলাকায় সোমবার রাত ৯ টা নাগাদ গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।