স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার বিলকান্দা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় মহিলা বিজেপি প্রার্থীকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে চাপ দিয়ে কাজ না হওয়ায় তার বাড়িতে ঢুকে মধ্যরাতে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল শাসক দলের আশ্রিত দুষ্কৃতিদের বিরুদ্ধে।

ভাঙচুর ও হেনস্থার আগাম খবর পেয়ে শুক্রবার রাতে বাধ্য হয়ে আত্মগোপন করেছিলেন ওই মহিলা বিজেপি প্রার্থী। দূর থেকে দাঁড়িয়ে দেখেছেন তার বাড়িতে হামলার ঘটনা।

উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর ২ নম্বর ব্লকের বিলকান্দা ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ২০৫ নম্বর অংশের বিজেপি দলের গ্রাম পঞ্চায়েত প্রার্থী গৌরী হালদার কে তার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর থেকেই তা তুলে নেওয়ার জন্য ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করে আসছিল স্থানীয় তৃণমূল নেতা অমল মির্ধা। কিন্তু ভোটের ময়দান থেকে কোন অবস্থাতেই সরে দাঁড়াতে চাননি বিজেপি প্রার্থী গৌরী দেবী। নিজের সিদ্ধান্তে অনড় ওই মহিলা বিজেপি প্রার্থী মনোনয়নপত্র তুলতে অস্বীকার করেন।

অভিযোগ, শুক্রবারও গৌরী হালদারকে হুমকি দেয় বিলকান্দা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার স্থানীয় তৃনমূল নেতা অমল বাবু ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। গৌরী দেবীকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল তিনি তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করলে দেখে নেওয়া হবে তাকে।

এরপর শুক্রবার রাতে বিপদের আশঙ্কায় গৌরী দেবী নিজেই নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নেন। গৌরী হালদারের অভিযোগ, শুক্রবার মধ্যরাতে তাদের বাড়ির গেটের তালা ভেঙে বাড়িতে ঢোকে স্থানীয় শাসক দলের আশ্রিত দুষ্কৃতিরা। তারা ঘরের ফ্রিজ, টিভি, ও অন্যান্য আসবাব পত্র, দরজা, জানালাতে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

গৌরী দেবীর স্বামী রাতে শুধু একা বাড়িতে ছিলেন, তবে তিনি নিজের ঘরের দরজা না খোলায় তিনি দুষ্কৃতিদের হাত থেকে প্রাণে বেঁচে যান। এই ঘটনায় নিউ বারাকপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে গৌরীদেবীর পরিবারের পক্ষ থেকে।

এতকিছুর পরেও গৌরী দেবী নিজের ভোটে লড়ার সিদ্ধান্তে অনড়। তিনি কোন অবস্থায় নিজের মনোনয়ন প্রত্যাহার করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে নিউ বারাকপুর থানার পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

গৌরী দেবী জানিয়েছেন যে তিনি আগাম খবর পেয়েছিলেন তার বাড়িতে হামলা হতে পারে । সেই আশংকাতেই বাড়ি থেকে সরে পড়েছিলেন। তবে দূর থেকে তিনি সবই দেখেছেন কে বা কারা তার বাড়িতে ঢুকে তাণ্ডব ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটিয়েছিল। অমল মৃধা ও তার দলবলই এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি করেছেন গৌরী হালদার। বর্তমানে তিনি নিজের এলাকাতেই রয়েছেন। আতংকিত হলেও তাঁর বক্তব্য, ‘যে ক্ষতি তৃণমূলের গুণ্ডা বাহিনী বাড়িতে ঢুকে করেছে তারপর আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের প্রশ্নই নেই।’ বাঁধা বিপত্তি থাকলেও তিনি ভোটে লড়বেন, জানিয়েছেন ওই বিজেপি প্রার্থী।

অন্যদিকে অভিযুক্ত অমল মৃধার দাবি তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন ওই বিজেপি প্রার্থী। তিনি তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এই অভিযোগ সম্পর্কে তার কিছু জানা নেই বলে জানিয়েছেন স্থানীয় অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা অমল মৃধা। তিনি বলেন, ‘ওই বিজেপি প্রার্থী গৌরী হালদার অসত্য অভিযোগ করে সস্তা প্রচার পেতে চাইছেন।’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও