নয়াদিল্লি : আগামী মে এবং জুন মাসে দেশের ৮০ কোটি মানুষকে বিনা পয়সায় রেশন দেবে কেন্দ্র। এর জন্য কেন্দ্রের ২৬ কোটি টাকা খরচ হবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই কথা ঘোষণা করেছেন। সারা দেশে করোনা পরিস্থিতি যে ভাবে নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে তাই পরিস্থিতি সামাল দিতে কেন্দ্রের তরফে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এদিকে কেন্দ্রের এই ঘোষণা শোনা মাত্র তৃণমূলের তরফে বলা হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী আগেই বলেছেন, রাজ্যে ক্ষমতায় এসে জুন মাস থেকে বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দেওয়া হবে। কেন্দ্র রাজ্যের এই প্রকল্প নকল করে মানুষকে ধোঁকা দিচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী এমনিতেই বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দেবেন বলে জানিয়েছেন। তার পর কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের মানে কী?

এদিকে রাজনৈতিক বিতর্ক যতই হোক দেশের করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের আসে দাঁড়ানোই এখন রাষ্ট্রপ্রধানদের কাজ, সেটা কেন্দ্রের ও রাজ্যের শাসক দলের বুঝে চলা উচিত বলে মনে করছে রাজনৈতিক অভিজ্ঞরা

দেশের পরিস্থিতি এখন ভালো নোট। গোটা দেশ জুড়ে অক্সিজেনের অভাবে কোভিড রোগীদের মৃত্যু হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠছে। একটি অংশের অভিযোগ, দিল্লিতেই গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জন মারা গিয়েছেন শুধু অক্সিজেনের অভাবে। এক দিনে ২৬ হাজারের বেশি আক্রান্ত হয়েছেন দিল্লিতে। দেশের আক্রান্তও শুক্রবার ৩ লক্ষ ৩২ হাজারে পৌঁছে গিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার দেশের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে ১০ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন। তবে এই বৈঠকের আগে দেশের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করার জন্য কেন্দ্রের বিভিন্ন মন্ত্রকের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ভারতে আবার করোনা সংক্রমণ গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে সর্বকালীন রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাতেও রেকর্ড গড়েছে ভারত । পরপর দু’দিন দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ছাড়িয়েছে । কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের শুক্রবারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৩২ হাজার ৭৩০ জন।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান বলছে, বৃহস্পতিবার এই সংখ্যাটা ছিল ৩ লক্ষ ১৪ হাজার ৮৩৫ জন। বুধবার করোনায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২ লক্ষ ৯৫ হাজার ৪১ জন। এই হিসেবে বলছে রোজদিন দেশের করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ধাপে ধাপে বাড়ছে।
আক্রান্তের সঙ্গে পাল্লাদিয়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়েছে। শুক্রবারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা সংক্রমণের ফলে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২৬৩ জনের। বৃহস্পতিবার দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ১০৪। বুধবার দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ২৩। তথ্য বলছে মৃত্যুর এক্ষেত্রেও প্রতিদিনই বাড়ছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা।

এই পরিস্থিতিতে বিপন্ন মানুষদের কাছে খাবার পৌঁছে দেওয়া প্রয়োজন মনে করেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মে, জুন দুই মাস দেশের ৮০ কোটি মানুষকে বিনাপয়সায় রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.