স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: দলবদল করেই তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলরদের হুমকি দিচ্ছেন অর্জুন সিং। এমনই অভিযোগ করলেন ভাটপাড়া পুরসভার একদল তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলর।

ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং তৃণমূল কংগ্রেসের জন্মলগ্ন থেকেই ওই দলে ছিলেন। তৃণমূল কংগ্রেসের দুর্দিনের সৈনিক হিসেবে পরিচিত ছিলেন বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের অর্জুন। অর্জুন সিং একাধারে ছিলেন ভাটপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক অন্যদিকে ছিলেন ভাটপাড়া পৌরসভার তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে দিল্লিতে বিজেপির জাতীয় স্ফতরে গিয়ে গেরুয়া নামাবালী চড়িয়ে নিয়েছেন অর্জুন সিং। বিষয়টি এদিন সকাল থেকেই স্পষ্ট হয়ে যায়। অর্জুনের দলবদলের বিষয়টি আঁচ করে এদিনই মধ্যমগ্রামে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা কার্যালয়ে বৈঠক ডাকে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। ওই বৈঠকে ভাটপাড়া পুরসভার তৃণমূল কংগ্রেসের সকল কাউন্সিলরদের ডাকা হয়। উপস্থিত ছিলেন দলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং পানিহাটির বিধায়ক তথা বিধানসভার মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ।

আরও পড়ুন- পুলওয়ামা হামলার একমাস: শহিদ ১৬জন জওয়ান, খতম ১৮ জঙ্গি

ভাটপাড়া পুরসভায় তৃণমূল কংগ্রেসের মোট ৩৩জন কাউন্সিলর রয়েছেন। যাদের মধ্যে অর্জুনবাবুও একজন ছিলেন। তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই বৈঠকে ১৯ জন কাউন্সিলর উপস্থিত ছিলেন। যাদের মধ্যে সাত জন কাউন্সিলরকে অর্জুন সিং হুমকি দিচ্ছেন বলে তাঁরা অভিযোগ করেছেন। এই অবস্থায় তাঁরা নিরাপত্তার জন্য আবেদনও করেছেন দলের জেলা নেতৃত্বের কাছে। আতঙ্কিত কাউন্সিলরদের নিরাপত্তা দেওয়া হবে এবং এই বিষয়ে বারাকপুর পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে বলে জানিয়েছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন- অর্জুনের দলত্যাগে ভাঙতে চলেছে ভাটপাড়া পুরসভা

যদিও ভাটপাড়ার অর্জুন শিবিরের নেতারা আবার অন্য দাবি করছে। তাঁদের বক্তব্য, বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন পুরসভার অন্তত ৪০ জন জন প্রতিনিধি তার সঙ্গে রয়েছেন। ভেঙে যেতে চলেছে ভাটপাড়া পুর বোর্ডও। অর্জুন গোষ্ঠীর দাবি ভাটপাড়া পুরসভা ৩৫ জন কাউন্সিলরের মধ্যে অন্তত ২০ জন কাউন্সিলর অর্জুন বাবু সঙ্গে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। তবে প্রকৃত ঘটনা ঠিক কী ঘটছে তা জানা যাবে দিন কয়েকের মধ্যেই।