স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পার্শ্বশিক্ষক ইস্যুতে সংসদে ঝড় তুললেন লকেট চট্টোপাধ্যায়৷ হুগলির সাংসদ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মেলা-খেলার জন্য টাকা দিচ্ছেন, কিন্তু শিক্ষকদের দিকে তাকাচ্ছেন না। উল্টে মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আঙুল তুলে অভিযোগ করছেন, টাকা দেওয়া হচ্ছে না। সূত্রের খবর, তাঁর বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের নোটিশ আনতে চলেছে তৃণমূল৷

শুক্রবার পার্শ্ব শিক্ষিকার রেবতী রাউলের অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটনায় উত্তাল হয় সংসদের নিম্নকক্ষ। সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগ, পনেরো দিনের বেশি হয়ে গেল পার্শ্ব শিক্ষকরা অনশন করছেন। কিন্তু রাজ্য সরকারের কেউ সেখানে দেখতে যায়নি। পশ্চিম মেদিনীপুরের এক শিক্ষিকার মৃত্যু হয়েছে। ৫-৬ জন হাসপাতালে ভর্তি। বাংলায় শিক্ষকদের শোচনীয় অবস্থা বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এরপরই অধ্যক্ষ ওম বিড়ালাকে চিঠি দিয়ে অভিযোগ করেছেন লোকসভার তৃণমূল দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ তাঁর অভিযোগ, সংসদকে রাজনৈতিক মঞ্চ হিসাবে ব্যবহার করছে বিজেপি। জিরো আওয়ারে অন্যান্য ইস্যু তুলে সংসদ অবমাননার কাজ করছেন বিজেপি সাংসদরা।

এদিন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় লকেট চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে পাল্টা তোপ দেগে বলেন, হুগলির বিজেপি সাংসদ যে সমস্ত দাবি করছেন, তা নিম্নমানের দাবি। রাজ্য সরকারের পার্শ্বশিক্ষকদের প্রতি সহমর্মিতা রয়েছে বলেই রাজ্যের তরফে পার্শ্বশিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধিও করা হয় মমতা সরকারের তরফে।

উল্লেখ্য, অনশনরত অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে রেবতী রাউত নামে এক পার্শ্বশিক্ষকের৷ আর একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ ঐক্য মঞ্চ ফেসবুক পেজে রেবতী দেবীকে এই আন্দোলনের ‘প্রথম শহিদ’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে রেবতী রাউতের মৃত্যুর কারণ এবং তারিখ নিয়ে রীতিমতো বিতর্ক বেঁধেছে। সংগঠনের দাবি, অনশনজনিত অসুস্থতাতেই রেবতীর মৃত্যু হয়েছে। রেবতী রাউতের মৃত্যু, তাপস বরের ব্রেন স্ট্রোক ছাড়াও অন্তত ৬ জন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে পার্শ্বশিক্ষক ঐক্য মঞ্চের তরফে দাবি করা হয়েছে। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেছে বিভিন্ন শিক্ষক ও কর্মী সংগঠন। পুলিশ সূত্রের দাবি, বাইক থেকে পড়ে মৃত্যু হয়েছে রেবতী রাউত নামে ওই মহিলার। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এখনও মেলেনি।