স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: ভোটের পরবর্তী সময়ে হিসাব বুঝে নেবে শাসক দলের ওপরতলার নেতারা। ফল খারাপ হলে হারাতে হতে পারে পদ। তাই ভোট-পরবর্তী আতঙ্কে রয়েছে শাসক দলের নেতাকর্মীরা। মালদহ জেলার রাজনৈতিক চরিত্র লোকসভা ভোটে বরাবরই অন্যরকম। তবে জেলায় বিজেপি যেভাবে বিভিন্ন এলাকায় লীডের কথা বলছে, তাতেই আতঙ্কিত জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

রাজ্যে ২০১১ সালে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসলেও মালদহে বিশেষ হেরফের হয়নি৷ জেলায় আসন দখলে মরিয়া প্রয়াস চালায় শাসক দল। ২০১৪ সালে উত্তর মালদহ কেন্দ্রে প্রার্থী করা হয় ডাক্তার মোয়াজ্জেম হোসেনকে ও দক্ষিণ মালদহ কেন্দ্রের প্রার্থী করে সৌমিত্র রায়কে। কিন্তু সে ক্ষেত্রে দেখা যায় মালদার দুটি আসনেই জয় লাভ করে কংগ্রেস, হেরে যায় তৃণমূল।

আরও পড়ুন : কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে তমলুক-কাঁথির গণনা কেন্দ্র

সেক্ষেত্রে কোথাও তৃণমূল কংগ্রেস দ্বিতীয়তে আবার কোথাও চতুর্থ স্থান অধিকার করে। পরবর্তীতে বিধানসভা ভোটে ১২ টি আসনের মধ্যে ৮ টি তে জয় লাভ করে কংগ্রেস,২টি সিপিএম ও একটি আসন দখল করে সিপিএম সমর্থিত নির্দল ও একটি আসন দখল করে বিজেপি। এরপর দল পরিবর্তন করে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করে চার বিধায়ক।

পঞ্চায়েত ভোটে আসনে জয় লাভ করে তৃণমূল কংগ্রেস। একছত্র ভাবে জেলা পরিষদ দখল করে শাসক দল। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের আগে অনেক আগে থেকে মালদহের দুটি আসন দখলের জন্য মরিয়া প্রয়াস চালাচ্ছে তৃণমূল। ফলে প্রথম থেকেই মালদহ জেলায় একাধিকবার জেলার পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী দুটি আসন দখলের কৌশল তৈরি করেন৷

একাধিকবার রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে জেলা নেতৃত্ব দফায় দফায় আলোচনা করে৷ জেলার একদম নিচুস্তর থেকে প্রচারে ঝাঁপিয়ে পড়েন মালদহ জেলার তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। তবে এই জেলায় বিজেপি আবেগ কাজ করেছে। বিজেপি প্রচুর ভোট পাবে বলে মনে করছে জেলার রাজনৈতিক মহল। সেই কারণে বিজেপিও মালদহ জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্রে ছোট ছোট মন্ডল কমিটি গঠন করে ভোট প্রচার শুরু করে দিয়েছিল প্রথম থেকেই। তবে জেলায় যেভাবে ভোট হয়েছে তাতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন : কার দখলে দিল্লি, রেজাল্টের আগে টেনশান কাটাতে মমতার অস্ত্র ‘মিউজিক’

জেলা তৃণমূলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দুলাল সরকার বলেন, এক সময় মালদহ জেলা কংগ্রেসের ফল ভাল হতো। বর্তমানে তাদের অবস্থা অত্যন্ত সঙ্কটজনক। বেশিরভাগই এখন তৃণমূল কংগ্রেসের রয়েছে। স্বাভাবিকভাবে এবছর মালদহে দুটি আসনেই তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। আর যারা আসন দখলের আতঙ্কের কথা বলছেন তারা পাগল হয়ে এই ধরনের কথাবার্তা বলছেন। জেলার প্রতিটি ব্লকেই আমাদের ফল ভালো হবে। আমাদের কর্মীরা একদম নীচের স্তরে নেমে মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছে। মানসই এর যোগ্য জবাব দিয়েছে ভোট বাক্সে।ফলে আমাদের জয় নিশ্চিত রয়েছে মালদহের উত্তর-দক্ষিণ লোকসভা কেন্দ্রে।