স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: দলের রামপুর অঞ্চলের সভাপতিকে বহিস্কার করলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। পঞ্চায়েতে শাসক দলের খারপ ফলের কারণেইএই পদক্ষেপ বলে জানা গিয়েছে৷

মহঃবাজার ব্লকের ১২টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে মধ্যে ১০টিই তৃণমূলের দখলে৷ রামপুর পঞ্চায়েত ত্রিশঙ্কু অবস্থায় রয়েছে৷ কিন্তু গনপুর পঞ্চায়েতে ফুটেছে পদ্মফুল৷ আইন-শৃঙ্খলা অবণতির কারণ দেখিয়ে প্রশাসন বেশ কয়েকবার পিছিয়ে দিয়েছে বোর্ড গঠন পক্রিয়া৷

বিরোধীদের অভিযোগ এইপদক্ষেপ আসলে শাসক দলের নির্দেশেই হয়েছে৷ আসলে এই সময়ে বিরোধী সদস্যদের ভয় দেখিয়ে দলের টানার চেষ্টা চলবে৷ যদিও কাজ করেনি ‘কেষ্ট ম্যাজিক’৷ মরন কামড় হিসাবে দু’দিন আগে গনপুর পঞ্চায়েতের দুই জয়ী বিজেপি প্রার্থীকে তৃণমূলে যোগ দেওয়ানো হয়৷ তবে চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না

কাটতেই আবার ফিরেছে বিজেপিতে৷শনিবার মহঃবাজারের দলীয় জনসভা থেকেই বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি রামপুর অঞ্চলের দলীয় সভাপতি রাকেশ মন্ডলকে বহিস্কার করার কথাঘোষণা করেন। কাজ না করলে দলে থাকা যাবে না বলে এদিন ফের সংগঠনের সদস্যদের হুঁশিয়ারি দেন অনুব্রত৷

এদিনের সভা থেকে এদিন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকেও কটাক্ষ করে কেষ্টবাবু। তিনি বলেন, ‘‘লোক সভা নির্বাচনে আমেরিকার পুলিশনিয়ে এসে নির্বাচন করালেও বাংলায় ৪২-এ ৪২টি আসনই জিতবে তৃণমূল৷’’ তুলে ধরেন মমতা সরকারের উন্নয়নের খতিয়ান৷ ঘোষণা করেন, ১২টিঅঞ্চলে সাবমার্সিবল ও পানীয় জলের সুব‍্যবস্থা করার কথা৷