ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর উত্তপ্ত হয়ে উঠল বাঁকুড়ার শালতোড়া। বিদ্যুৎ দাস নামে এক স্থানীয় বিজেপি নেতা গুলিবিদ্ধ। এই ঘটনায় বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগের তীর তৃণমূলের বিরুদ্ধে৷ যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে শাসক শিবির।

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার রাতে জেলার দুই কেন্দ্রে বিজেপির এগিয়ে থাকার খবরে উল্লসিত দলীয় কর্মীরা শালতোড়া বাজারে পটকা ফাটাচ্ছিলেন। সেই সময় ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন তৃণমূল ব্লক সভাপতি কালিপদ রায়৷ সেখানে থেকে তিনি গাড়ি নিয়ে যাচ্ছিলেন৷ অভিযোগ, তখন তিনি গাড়ি থেকে নেমে বিজেপি মহিলা কর্মীদের অকথ্য ভাষায় কথা বলেন৷ সেই পরিস্থিতিতে বিজেপির পক্ষ থেকে শালতোড়া থানায় গণ জমায়েত করলে পুলিশের উপস্থিতিতে তৃণমূলের পক্ষ থেকে হামলা চালানো হয় বলে পদ্ম শিবিরের দাবি।

মুহূর্তের মধ্যে বিজেপি-তৃণমূল হাতাহাতির রূপ নেয়। একই সঙ্গে এই ঘটনার পর বাজারের মধ্যে স্থানীয় বিজেপি নেতা বিদ্যুৎ দাস গুলিবিদ্ধ হন। অল্পের জন্য তিনি প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন। তার চিকিৎসা চলছে। গুলি চালানোর ঘটনার পিছনে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা যুক্ত বলে বিজেপির তরফে দাবি করা হয়েছে।

স্থানীয় এক বিজেপি কর্মী গৌরাঙ্গ মণ্ডল বলেন, আমরা বিজেপি কর্মীরা পটকা ফাটিয়ে বিজয়োৎসব পালন করছিলাম। সেই সময় গাড়ি থেকে নেমে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি কালিপদ রায় মহিলাদের উদ্দেশ্যে কটূক্তির পাশাপাশি বাড়িতে বোমা ঢুকিয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় বলে তিনি অভিযোগ করেন। একই সঙ্গে ওই তৃণমূল নেতার বাড়িতে গুণ্ডা বাহিনী মজুত আছে বলে দাবি করেন তিনি৷ গুলি চালনার ঘটনায় ওই তৃণমূল নেতা যুক্ত। পুলিশি তদন্তে আসল সত্য উঠে আসবে বলে তিনি মনে করেন।

যদিও বিজেপির সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূলের শালতোড়া ব্লক সভাপতি কালীপদ রায়। তাঁর দাবি, বিজেপির লোকেরাই তার বাড়িতে ভাঙচুর করেছে। তিনি বলেন, আমার গাড়ির সামনে বিজেপি কর্মীরা পটকা ফাটালে আমি তার প্রতিবাদ করি। এরপর শুক্রবার সকালে ফের তার বাড়ির ভিতরে বিজেপির লোকেরা পটকা ছুঁড়তে শুরু করলে সেই পটকা তার বাড়ির রান্নার ঠাকুরের গায়ে লাগে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

পাড়ার লোকেরা এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে বিজেপি কর্মীরা পালিয়ে যায় বলে তার দাবি। পরে আরও তিরিশ-চল্লিশ জন যুবক মদ্যপ অবস্থায় তার বাড়ি ভাঙচুর করেছে দাবি করেন তিনি৷ বলেন, সব ঘটনা প্রশাসনের লোকেরা দেখেছেন। তাদের তরফে প্রতিরোধ হলে তারা কেউ দাঁড়াতে পারবে না বলেও এই তৃণমূল নেতা হুঁশিয়ারি দেন।