হায়দরাবাদ: ভক্তরা নোট বন্দির আগের নোট তিরুপতি মন্দিরে প্রণামী বাবদ জমা করায় ৫০ কোটি টাকা ব্যবহার করতে পারছে না। ওইরকম অচল নোট এখনো প্রণামীর বাক্সে জমা পড়ছে যা ব্যবহার করা যাচ্ছে না।

তিরুমালা তিরুপতি দেবাস্থানমের(টিটিডি) আধিকারিক জানিয়েছেন, যদিও কেন্দ্রীয় সরকার ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর নোট বন্দির জন্য তখনকার ১০০০ এবং ৫০০ টাকার নোট বাতিল করলেও ভক্তরা এখনও সেই পুরনো অচল নোট জমা করছে প্রণামী হিসেবে।

এর ফলে দক্ষিণ ভারতের অন্ধপ্রদেশের এই মন্দিরটি ওই পুরনো অচল ১.৮ লক্ষ১০০০ টাকার নোট অর্থাৎ ১৮ কোটি টাকা এবং ৬.৩৫ লক্ষ ৫০০ টাকার নোট অর্থাৎ ৩১.৭ কোটি টাকা পেয়েছে। অর্থাৎ দুয়ে মিলিয়ে মোট প্রায় ৫০ কোটি টাকা।

দেশের অন্যতম সবচেয়ে ধনী মন্দির তিরুপতি ওই পুরনো নোটে ভরে গিয়েছে কিন্তু তা ব্যবহার করতে পারছে না যেহেতু সেগুলি গত প্রায় চার বছর ধরেই অচল হয়ে পড়ে রয়েছে।

তিরুমালা তিরুপতি দেবাস্থানমের চেয়ারম্যান ওয়াই ভি সুব্বা রেড্ডি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনকে এই সমস্যার কথা জানিয়ে অনুরোধ করেছেন যাতে পুরনো নোট রিজার্ভ ব্যাংকের কাছে তারা জমা দিয়ে নতুন নোটে বদলে নিতে পারে। তা সম্ভব হলে টি টি ডি ওই টাকা আধ্যাত্বিক এবং কল্যাণমূলক কাজে লাগাতে পারে।

প্রসঙ্গত এর আগে টিটিডি এমন অনুরোধ করে ২০১৭ সালে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক এবং রিজার্ভ ব্যাংকের কাছে আবেদন জানিয়েছিল। ফের এবারে‌ নির্মলা সীতারামনকে একই রকমের অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যদিকে টিটিডি আধিকারিক এর বক্তব্য, তারা কোন ভক্তকে এভাবে নোট দিতে নিষেধ করতে পারেন না যেহেতু ‌এর সঙ্গে তাদের বিশ্বাস এবং সেন্টিমেন্ট জড়িয়ে রয়েছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।