নয়াদিল্লি: এমনও হয়! নিজের সন্তানকে কেউ আবর্জনায় ছুঁড়ে ফেলে দিতে পারে? মানসিক অসুস্থ হলে এক কথা৷ কিন্তু সুস্থ স্বাভাবিক মা হলে? অবিশ্বাস্য হলেও এমনই ঘটনা ঘটেছে রাজধানীতে৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে ওই মহিলার নাম নেহা৷ তিনি পূর্ব বিনোদপুরের বাসিন্দা৷ অভিযোগ, ২৫ দিনের মেয়ের কান্নায় অতিষ্ট হয়ে তিনি তাকে আবর্জনায় ছুঁড়ে ফেলে দেন৷ পরে ওই সদ্যোজাতকে আবর্জনা থেকে উদ্ধার করা হয়৷ গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ সেখানেই সে মারা যায়৷

শনিবার এক সিনিয়র পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, এক মহিলা তাঁর ২৫ দিনের সন্তানকে আবর্জনায় ছুঁড়ে ফেল দেয়৷ ওই মহিলার বক্তব্য ছিল মেয়ের কান্না তাঁর সহ্য হচ্ছিল না৷ রাগের বশেই তিনি এমন কাজ করেন৷ নয়াদিল্লির জিটিবি হাসপাতালে ওই সদ্যোজাত মেয়েটি মারা যায়৷

পড়ুন: নাবালিকাদের শরীরে ভয়ানক হরমোন ইঞ্জেকশন দিয়ে নামানো হচ্ছে দেহ-ব্যবসায়!

শুক্রবার থেকেই ২৫ দিনের ওই সদ্যোজাতকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না৷ এনিয়ে পুলিশ একটি অপহরণের মামলাও রুজু করে৷ তাদের সন্দেহের তালিকায় প্রথমেই ছিল নেহার নাম৷ কারণ, এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছিলেন নেহাকে তিনি কিছু ছুঁড়ে আবর্জনায় ফেলে দিতে দেখেছিলেন৷ কিন্তু সেটা কী ছিল, তা তিনি জানাতে পারেননি৷ প্রশ্নোত্তর পর্ব চলার সময়ই আবর্জনা স্তুপ খুঁজে দেখা হয়৷ তখনই সদ্যোজাতকে দেখতে পাওয়া যায়৷

পুলিশ তাকে উদ্ধার করে এলবিএস হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ সদ্যোজাতের দেহের একাধিক হাড় ভেঙে গিয়েছিল৷ মাথাতেও চোট পেয়েছিল সে৷ এলবিএস হাসপাতাল থেকে তাকে জিটিবি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়৷ সেখানেই শনিবার সেই সদ্যোজাতের মৃত্যু হয়৷