নয়াদিল্লি: করোনা কাঁপুনি গোটা দেশে। ইতিমধ্যে দু’হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে দেশে মৃত্যুর সংখ্যাও। যদিও মারণ এই ভাইরাসের প্রতিষেধক এখনো আবিষ্কার হয়নি। এবার করোনা রুখতে ঘরোয়া পদ্ধতিতে কয়েকটি টোটকার হদিশ দিল ভারত সরকারের আয়ুষ মন্ত্রক। করোনা রুখতে শারীরিক প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা একান্ত জরুরি। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়লে কর্নার সংক্রমণ ঠেকানোর যেতে পারে বলে মনে করছে ভারত সরকারের আয়ুষমন্ত্রক।

কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ রুখতে শারীরিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির কথা আগেই জানিয়েছিলেন বিশেষজ্ঞরা এবার সেই বিষয়টি আরও একবার উল্লেখ করেছে আয়ুষ মন্ত্রক। আয়ুষ মন্ত্রকের পরামর্শ অনুযায়ী, রান্নায় হলুদ, জিরে এবং ধনের মতো মশলা ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এরই পাশাপাশি করোনাভাইরাস এর হামলা রুখতে সারাদিন অল্প অল্প করে গরম জল পান করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

দিনে অন্তত তিরিশ মিনিট করে যোগ ব্যায়াম করতে পরামর্শ দিয়েছে আয়ুষ মন্ত্রক। তার মধ্যে প্রাণায়ম এবং ধ্যান করলে বেশি উপকার হবে বলে জানানো হয়েছে। আয়ুষ মন্ত্রক আরো জানিয়েছে যেহেতু করোনার কোনো প্রতিষেধক এখন আবিষ্কৃত হয়নি, তাই করো না ভাইরাসের হামলা থেকে বাঁচতে শারীরিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর অন্যতম কৌশল হতে পারে।

শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভারত সরকারের আয়ুষ মন্ত্রক দিনে এক বা দু’ বার তুলসি, দ্বারচিনি, গোলমরিচ, আদা, কিসমিসের পাচন অথবা হার্বাল চা খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। খুসখুসে কাশির জন্য দিনে একবার গরম জলের মধ্যে পুদিনা পাতা বা জোয়ান দিয়ে ভাপ নেওয়া যেতে পারে বলে জানিয়েছে আয়ুষ মন্ত্রক. গলা খুসখুস করলে দিনে দুই থেকে তিনবার মধুর সঙ্গে কিছুটা লবঙ্গ গুঁড়ো মিশিয়ে খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।