নয়াদিল্লি: গালওয়ান সীমান্তে চিন-ভারত সংঘর্ষের পরে কার্যত চিনের বিরুদ্ধে যথেষ্ট কড়া মনোভাব দেখাচ্ছে ভারত। হাতে নয়, চিনকে ভাতে মারার ছক কষেছে ভারত।

চিনের প্রতি সরাসরি নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল বেশ কিছু চিনা অ্যাপের বিরুদ্ধে। আর সেই কারণে কোপ পড়েছিল জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ টিকটকের উপরে। ভারতের তরফ থেকে এই অ্যাপের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়ার পর থেকেই অন্যান্য বেশ কিছু দেশ কার্যত একই পথে হেঁটেছিল। আর সেই কারণে এবারে ভারতে ফিরতে চেয়ে রিলায়েন্সের সঙ্গে কথা বলা শুরু করল টিকটক।

টিকটকের প্রধান সংস্থা বাইটডান্স রিলায়েন্সের সঙ্গে এই বিষয় নিয়ে কথা বলেছে বলে জানা গিয়েছে। কার্যত এই মুহূর্তে বিশ্বের বাজারে যথেষ্ট পিছিয়ে পড়েছে এই ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম।

সেই কারণে ভারতে যাতে তাদের কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয় এবং যাতে সব নিষেধাজ্ঞা লাঘব করা হয় সেই বিষয়টি মাথাতে রেখেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। বিগত বেশ কিছু বছর ধরে ভারত ছিল টিকটকের কাছে অন্যতম লাভের জায়গা। দেশের একাধিক মানুষ ব্যবহার করতেন এই প্ল্যাটফর্ম। এমনকি একাধিক তারকারাও এই প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করতেন।

ভারতে এই সংস্থার প্রায় ২ হাজারের কাছাকাছি কর্মী রয়েছে। তাদের তরফে জানানো হয়েছে কোন কর্মীকেই তারা ছাঁটাই করতে চান না। আর সেই কারণেই তারা বাধ্য হয়ে রিলায়েন্সের সঙ্গে এই বিষয় নিয়ে আলোচনা শুরু করেছেন। পাশপাশি তারা চুক্তি করার ক্ষেত্রেও আগ্রহ দেখিয়েছে। পাশপাশি বিশ্বের বাজারে এই মুহূর্তে যে সমস্যার মুখোমুখি টিকটক তাও তারা দ্রুত কাটিয়ে উঠতে চায় বলেও জানা গিয়েছে।

তবে জানা গিয়েছে ইতিমধ্যে এই সংস্থার বেশ কিছু শীর্ষ কর্তা পদত্যাগ করেছেন। তবে এই মুহূর্তে ডিজিটাল দুনিয়াতেই মনোনিবেশ করছে রিলায়েন্স।

পাশপাশি আগামীতে তারা ৫জি নিয়ে আসার পরিকল্পনাও করেছেন। সেই কারণে গ্রাহক সংখ্যা যে আরও বারবে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। সেই বিষয়টি মাথাতে রেখেই এই মুহূর্তে রিয়াল্যেন্সের সঙ্গে জোট বাধতে চাইছে বাইটডান্স। পাশপাশি এর ফলে ভারতীয়দের কাছে নিজের জায়গা ফিরে পাবে বলেও মনে করছে তারা।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।