নয়াদিল্লি: গালওয়ান সীমান্তে সংঘর্ষের পরেই চিনের বিরুদ্ধে শক্ত হাতে রাশ ধরেছিল ভারত। সরাসরি ব্যান করা হয়েছিল একাধিক চিনা অ্যাপ। যার মধ্যে ছিল টিকটক। আর ভারতের এই সিদ্ধান্তের পর থেকেই আন্তর্জাতিক বাজারেও কার্যত কোণঠাসা হয়ে পরেছিল এই অ্যাপ। ভারতের পাশপাশি একাধিক দেশ এই অ্যাপের উপরে জারি করেছিল নিষেধাজ্ঞা। তবে সামনে এল সম্প্রতি এই টিকটক নিয়ে এক নয়া তথ্য।

মার্কিন ওয়াল ষ্ট্রীট জার্নালের তরফে জানা গিয়েছে টিকটক অ্যান্ড্রয়েড পলিসি ভঙ্গ করে প্রায় এক বছরের বেশি সময় ধরে ব্যবহারকারীদের ম্যাক অ্যাড্রেস সংগ্রহ করে চলেছিল। যা সামনে আসাতে আরও বিপাকে এই চিনা অ্যাপ। দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে এই কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল তারা। ম্যাক এড্রেস একটি গুরুত্বপূর্ণ একটি তথ্য। যা যে কোন ডিভাইস ব্যবহারকারীদের একটি পরিচয় দিয়ে থাকে। তবে ঠিক কি কারণে এই ডেটা সংগ্রহ তারা করছিল তা এখনও জানা যায়নি।

২০১৫ সাল থেকেই অ্যাপেল এবং গুগল প্লে স্টোর প্রাইভেসি নিয়মে বেশ কিছু পরিবরতন নিয়ে এসেছিল। কিন্তু জানানো হয়েছিল কোন ভাবেই ব্যবহারকারীদের এই ম্যাক এড্রেস সংগ্রহ করতে পারবে না। তবে কেবলমাত্র টিকটক একা এই কাজ করেনি। এছাড়াও আরও ৩৫০ টি অ্যাপ লুপহোলের মাধ্যমে এই তথ্য সংগ্রহ করে চলেছিল এমনটা জানা গিয়েছে।

এই মুহূর্তে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই চিনা অ্যাপ নিয়ে দেখা গিয়েছে প্রশ্ন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কার্যত এই চিনা অ্যাপ নিয়ে বিরূপ মনোভাব দেখিয়েছেন। তার মধ্যে এই নয়া তথ্য সামনে আসাতে রীতিমত সমস্যাতে টিকটক। তবে টিকটকের তরফে বারবার জানানো হয়েছিল তারা কোন ব্যবহারকারীর তথ্য অন্য কারো সামনে প্রকাশ করে নি। কিন্তু তার মধ্যে এই তথ্য সামনে আসাতে রীতিমত বিপাকে টিকটক।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও