নয়াদিল্লি: নিউ ইয়র্ক পেরিয়ে এবার পশুর করোনা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা এবার ভারতে। খাস রাজধানী দিল্লিতে এক বাঘিনীর মৃত্যুতে এই আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

শুক্রবার জানা গিয়েছে, কিডনি বিকল হয়ে মৃত্যু হয়েছে কল্পনা নামের ওই বাঘিনীর। বুধবার সন্ধ্যায় মারা যায় ১৪ বছর বয়সী বাঘিনী কল্পনা। বৃহস্পতিবার তার সৎকারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তবে নিশ্চিত হওয়ার জন্যই করোনা পরীক্ষা করতে দেওয়া হয়েছে। পাঠানো হয়েছে নমুনা।

মানুষের সঙ্গে ওই বাঘিনীর যাতে বেশি সংস্পর্শ না হয় সেজন্য কল্পনার সৎকারের কাজে বনদফতরের হাতেগোনা কয়েকজন মাত্র আধিকারিক হাজির ছিলেন। এসেছিলেন চিড়িয়াখানার অল্প কয়েকজন। তবে যারা সেদিন উপস্থিত ছিলেন তাঁদের সকলকেই সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হয়েছে। ময়নাতদন্তও হয়েছে ওই বাঘিনীর।

রিপোর্টে জানা গিয়েছে, মৃত্যুর আগে ভীষণ ভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছিল বাঘিনী কল্পনা। তার শরীরে উচ্চ মাত্রায় ক্রিয়েটিনিন পাওয়া গিয়েছে।

পরিবেশ মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, করোনা পরীক্ষার জন্য বরেলিতে ইন্ডিয়ান ভেটেরেনারি রিসার্চ ইন্সটিটিউটে পাঠানো হয়েছে বাঘিনীর নমুনা। পাশাপাশি করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় সৎকারের যে গাইডলাইন প্রকাশ করা হয়েছে তা মেনেই কল্পনার শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়েছে।

নিউ ইয়কের চিড়িয়াখানায় প্রথম এক বাঘিনীর শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে। পরে আরও চার বাঘ ও সিংহ আক্রান্ত হয়েছে।

নিউ ইয়র্কের ব্রংকস চিড়িয়াখানায় নাদিয়া নামে এক বাঘিনী করোনায় আক্রান্ত হয়। এরপরই ওই চিড়িয়াখানার অন্যান্য সদস্যদের শরীরে উপসর্গ দেখা দিতে শুরু করে। ওই বাঘিনীই ছিল প্রথম, যে মানুষের থেকে সংক্রামিত হয়।

জানা গিয়েছে ওই চিড়িয়াখানার আরও তিন বাঘ ও তিন আফ্রিকান সিংহের শরীরে এই ভাইরাস ধরা পড়েছে। একটি বাঘের শরীরে ধরা পড়েছে, যার কোনও উপসর্গ ছিল না। ভেটেনারি ল্যাবরেটরিতে এদের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। অন্যান্য প্রাণীদের অবশ্য সংক্রমণ ধরা পড়েনি। তবে অন্যান্য প্রাণীর থেকে মানুষের শরীরে সংক্রমণ ছড়াতে পারে, এমন কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।